‘আমার টাকা নেই বলে দিদি টিকিট দিলেন না…’, মমতাকে নিয়ে বিস্ফোরক তৃণমূলের অপরূপা পোদ্দার

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ ২০২৪ লোকসভা ভোটের (Lok Sabha Election 2024) প্রার্থী তালিকায় একের পর এক চমক দিয়েছে তৃণমূল (Trinamool Congress)। একাধিক কেন্দ্রে গতবারের জয়ী সাংসদের টিকিট দেননি তৃণমূল সুপ্রিমো। কোথাও আবার নয়া মুখকে আনা হয়েছে ময়দানে। আবার কোথাও বাইরে থেকে হায়ার করা হয়েছে প্রার্থী। টিকিট না পাওয়ায় এর আগে একের পর নেতা-নেত্রী দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন। কেউ কেউ আবার অর্জুন সিং এর মতো বিদ্রোহী মেজাজে যোগ দিয়েছেন অন্য দলে। এসবের মধ্যেই এবার টিকিট না পাওয়ায় বিস্ফোরণ ঘটালেন আরামবাগ লোকসভা কেন্দ্রের বিদায়ী সাংসদ অপরূপা পোদ্দার (Aparupa Poddar)।

   

গতবারের বিজয়ী সাংসদ। এলাকায় তার বিরাট দাপট। যে কোনো সভা, কর্মসূচী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গী তিনি। কিন্তু এবার আর আরামবাগ (Lok Sabha Poll 2024) লোকসভা আসনে তাকে টিকিট দেয়নি দল। আর টিকিট না পেয়ে এত দিনে মুখ খুললেন অপরূপা পোদ্দার। বিদায়ী সাংসদ বলেন, ‘ভোটে লড়ার টাকা নেই বলে এবার টিকিট পেলাম না।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি কেন টিকিট পেলাম না, তার উত্তর দিতে পারবেন হুগলির এক অভিজ্ঞ সাংসদ ও ২ মন্ত্রী। আমার যে ভোটে লড়ার মতো টাকা নেই, সেকথা হুগলির এক সাংসদ ও ২ মন্ত্রী জানতেন। তারাই হয়তো সেটা গিয়ে দিদিকে বলেছেন। আমি হয়তো যোগ্যই ছিলাম না, তাই টিকিট পাইনি।’

তবে হঠাৎ কেন তিনি টাকার প্রসঙ্গ তুললেন? প্রার্থী করা হলে দল তো তাকে টাকা দিতে সাহায্য করবে। তাহলে কার দিকে ইঙ্গিত করে এমন মন্তব্য করলেন তিনি? এই প্রশ্নের জবাবে অপরূপা বলেন, ‘ আমরা যখন ভোটে লড়তে যাই, তখন আপনাকে সঙ্গে সঙ্গে ভোট লড়ার জন্য টাকা বের করতে হয়। দল তো আর সঙ্গে সঙ্গে দেয় না। দলের একটা নির্দিষ্ট প্রসেস আছে।’

aparupa poddar tmc

আরও পড়ুন: সকাল থেকেই বৃষ্টি শুরু দক্ষিণবঙ্গে! কলকাতায় ৪০ কিমি বেগে উঠবে ঝড়: আবহাওয়ার খবর

প্রসঙ্গত, এবার অপরূপার বদলে মিতালী বাগকে ওই কেন্দ্র থেকে প্রার্থী করেছে তৃণমূল। তবে এই পরিস্থিতিতে কোন সাংসদ বা মন্ত্রীর কথা বললেন তিনি? তাহলে কী তার নিশানায় হুগলির শ্রীরামপুরের সাংসদ ও তৃণমূল প্রার্থী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় এবং মন্ত্রী স্নেহাশিস চক্রবর্তী ও মন্ত্রী বেচারাম মান্না? যদিও নিজের কথায় কারও নাম উল্লেখ করেননি অপরূপা।

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর