‘ধনকড়ও এমন করেননি!’, আনন্দ বোসকে নিয়ে মারাত্মক ক্ষুব্ধ মমতা

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক : চরমে উঠেছে রাজ্য ও রাজ্যপালের মধ্যে দ্বন্দ্ব। এবার প্রাক্তন রাজ্যপালের সঙ্গে তুলনা টেনে সি ভি আনন্দ বোসকে (CV Ananda Bose) দুষলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। কেন্দ্রের ইশারায় রাজ্যপাল কাজ করছেন বলেই তোপ তাঁর।

হিংসার পর এবার দুর্নীতি নিয়েও মুখ খুলেছেন রাজ্যপাল সি ভি আনন্দ বোস। ‘পিস রুমে’র পর এবার রাজভবনে ‘অ্যান্টি করাপশন সেল’ খুলে ফেলেছেন তিনি। দুর্নীতির প্রতিবাদে যে কেউ হেল্পলাইনে ফোন করে জানাতে পারেন অভিযোগ। তার ফলে স্বাভাবিকভাবেই রাজ্য ও রাজ্যপালের সংঘাত নতুন মোড় নিয়েছে।

নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে এবার রাজ্যপালকে নিশানা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন তিনি বলেন, ‘রাজ্যপাল নাকি স্পেশ্যাল সেল করেছেন! এটা রাজ্যপালের কাজ নয়। রাজ্যপলকে আমরা শ্রদ্ধা করি। উনি রাজ্য সরকারের যেটা অধিকার সেখানে আননেশেসারি ইন্টারফেয়ার করছেন। এক্সপার্ট কমিটি তৈরি করার কাজটা তো সরকারের। উনি শুনছি কেরল থেকে কাউকে ডেকে নিয়ে এসে ভিসি করে দিচ্ছেন। তার একাডেমিক কি যোগ্যতা আছে?’

anada bose

প্রাক্তন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ের সঙ্গে রাজ্যপাল বোসের তুলনা টেনে মুখ্যমন্ত্রীর মন্তব্য, ‘ধনকড় যখন ছিলেন তখন‌ও অনেক বিষয়ে আমরা একমত হতাম না। ঝগড়া হয়েছে। উনি কিন্তু কোনওদিন এটা করেননি। এখন দেখছি মুখোশের আড়ালে যা বিজেপি বলছেন তাই করে দিচ্ছেন। রাজ্যপালকে দোষ দিই না। কেন্দ্রের ইশারায় এটা করছেন।’

দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই রাজ্যের সঙ্গে সংঘাতে জড়িয়েছিলেন প্রাক্তন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। তা নিয়ে কাটাছেঁড়া কম হয়নি। তবে রাজ্যপাল বোসের ক্ষেত্রে শুরুর দিকে নবান্ন-রাজভবনের সম্পর্ক ভালই ছিল। রাজ্যপালের ‘হাতেখড়ি’ অনুষ্ঠানে খোদ মুখ্যমন্ত্রীকে দেখা যায় রাজভবনে।

এরপর থেকেই সম্পর্কের অবনতি ঘটে। গত পঞ্চায়েত নির্বাচনী আবহে হিংসা নিয়ে বারবার সুর চড়ান রাজ্যপাল। দুর্নীতি নিয়েও সরব হয়েছেন তিনি। সম্প্রতি ‘অ্যান্টি করাপশন সেল’ খোলার সিদ্ধান্ত সংঘাতের আগুনে ঘি ঢেলেছে বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

Avatar
Sudipto

সম্পর্কিত খবর