fbpx
টাইমলাইনবিনোদন

অন‍্যরকম যুদ্ধ, নিজেই কোমর বেঁধে শহর স‍্যানিটাইজেশনের কাজে নেমেছেন নাইজেল আকারা

বাংলাহান্ট ডেস্ক: ২১ দিনের লকডাউন চলছে গোটা দেশে। আগামী ১৪ এপ্রিল লকডাউন উঠবে কিনা তারও কোন ও নিশ্চয়তা নেই। পরিস্থিতি কবে স্বাভাবিক হবে তাঝ সঠিক করে বলতে পারছেন না কেউ। মানুষ ঘর বন্দি হয়ে রয়েছেন। অপরদিকে দরিদ্র, অসহায় মানুষরা এই পরিস্থিতিতে মাথায় হাত দিয়ে বসেছেন। এই অবস্থায় কোথা থেকে এক মুঠো ভাতের যোগান আসবে সেই চিন্তাতেই দিন কাটছে তাদের।

দেশের এই সঙ্কটে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তো বটেই, সব রাজ‍্যেই তৈরি হয়েছে ফান্ড। সাধারন মানুষ সহ বহু তারকা ইতিমধ‍্যেই সাহায‍্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। বাদ যাননি অভিনেতা নাইজেল আকারাও। তবে অন‍্যদের মতো অর্থ দিয়ে শুধু সাহায‍্য করেননি তিনি। নিজেই গোটা শহরটা স‍্যানিটাইজ করার কাজে নেমে পড়েছেন। বিধাননগর পৌরসভার সঙ্গে কোমর বেঁধে শহর স‍্যানিটাইজ করার কাজ করছেন নাইজেল। বিধাননগর পুরসভার ৩০ নম্বর ওয়ার্ড ঘুরে ঘুরে স‍্যানিটাইজ করতে দেখা গিয়েছে তাঁকে।

 

সেই কাজের ভিডিও নিজের সোশ‍্যাল মিডিয়া হ‍্যান্ডেলেও শেয়ার করেছেন অভিনেতা। এই প্রসঙ্গে নাইজেল বলেন, “গত সোমবার থেকে আমরা কাজ শুরু করেছি। তবে কোনও টেন্ডার নিয়ে আমরা কাজ করছি না। আমি স্বেচ্ছাসেবী হিসাবেই কাজ করছি। আসলে আমার যে সংস্থা Kolkata Facilities Management সেটা স‍্যানিটাইজেশনের কাজ করে। লকডাউনের আগেই এই কাজ শুরু করলেও লকডাউনের পরেই এই কাজ আমাদের বন্ধ করে দিতে হয়। কিন্তু স‍্যানিটাইজেশনের জন‍্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র তো কেনাই ছিল। তাই আমি বিধাননগর পৌরসভার সঙ্গে যোগাযোগ করি। ওনারা বিভিন্ন ব্লক ধরে স‍্যানিটাইজ করার আনুমতি দেন।”

নাইজেল আরও জানান, হাইড্রোজেন পারঅক্সাইড, সিলভার নাইট্রেট ও সোডিয়াম হাইড্রোক্লোরাইডের মিশ্রণ তৈরি করে স‍্যানিটাইজেশন করা হয়। বলা বাহুল‍্য, নাইজেলের এই ভিডিওগুলি প্রকাশ‍্যে আসতেই প্রশংসার ঢল নেমেছে। এভাবেও যে করোনা মোকাবিলায় পাশে থাকা যায় সেটাই প্রমাণ করে দিয়েছেন নাইজেল আকারা।

Back to top button
Close
Close