‘বিচারপতি গাঙ্গুলিই তো চাকরি দিয়েছিলেন, CBI ডাকছে, মানেটা…’, বোমা ফাটালেন কুণাল ঘোষ

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ এক বছরের বেশি সময় হয়ে গিয়েছে নিয়োগ দুর্নীতি (Teacher Recruitment Scam) ইস্যুতে তোলপাড় গোটা রাজ্য। শিক্ষক কেলেঙ্কারির অভিযোগে জেলবন্দি রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী থেকে শুরু করে বহু নেতা, বিধায়ক, শিক্ষা দফতরের আধিকারিক। আর এবার গোয়েন্দাদের নজরে ঘুষ দিয়ে চাকরি নেওয়া শিক্ষকগণ।

গত সোমবার টাকার বিনিময়ে চাকরি নেওয়া ৪ শিক্ষককে জেলে পাঠানোর নির্দেশ দেয় আদালত। প্রথম বার হওয়া এই ঘটনায় তোলপাড় পড়ে যায় গোটা রাজ্যে। বুধবার ফের বাঁকুড়া (Bankura) জেলা থেকে ৭ জন প্রাথমিক শিক্ষকদের (Primary Teachers) তলব করে সিবিআই (CBI)। এবার এই প্রসঙ্গেই বিস্ফোরক মন্তব্য মন্তব্য করলেন তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ (Kunal Ghosh)।

   

গতকাল রীতিমতো বোমা ফাটিয়ে কুণাল বলেন, বাঁকুড়া জেলা থেকে যেই ৭ শিক্ষককে CBI তলব করেছে,তাদের মধ্যে বিচারপতির নির্দেশে চাকরি পেয়েছে এরকম কয়েকজনও রয়েছে। বুধবার কলকাতা থেকে ঠিক এই বিস্ফোরক মন্তব্যই করে কুণাল।

কুণালের বক্তব্য: “বাঁকুড়া থেকে যাদের ডাকা হয়েছে তাদের মধ্যে বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের রায়ের (Justice Abhijit Ganguly) ভিত্তিতে চাকরি প্রাপ্ত শিক্ষক শিক্ষিকারাও রয়েছেন। তো তাদেরও যদি ডাকা হয়ে থাকে তাহলে তার মানে টা কি দাঁড়ায়। অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের নির্দেশে কোর্ট যদি নিয়োগ করে থাকে তাহলে তো সমস্ত রকম তথ্য ভেরিফাই করে তবেই তো নিয়োগ করেছিল। এখন তাদেরও যদি ডাকা হয় মিডিয়া ট্রায়ালে দেখা যায় তাদেরও অযোগ্য বলে জিজ্ঞাসা থাকলে সিবিআই ডেকে পাঠাচ্ছে তাহলে এখন এটা কিভাবে হবে।”

kunal ghosh

প্রসঙ্গত, বুধবার বেলা এগারোটায় বাঁকুড়া থেকে প্রাইমারি স্কুলে কর্মরত ওই সাত শিক্ষককে নথি সমেত নিজাম প্যালেসে তলব করা হয়। তাদের নথি খতিয়ে দেখতে ডেকে পাঠায় সিবিআই। সম্প্রতি নিয়োগ দুর্নীতির তদন্তে বিভিন্ন জেলা থেকে শিক্ষকদের ডেকে পাঠাচ্ছে সিবিআই। সেই সূত্রেই ওই সাত জনকেও তলব করা হয়। এই আবহেই এবার কুণালের বিস্ফোরক মন্তব্যে তোলপাড়।

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর