টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

ফ্রিজ থেকে রসগোল্লা খেয়ে লুঠ টাকা-গয়না! ডাকাতির অদ্ভুত লীলা তৃণমূল নেতার বাড়িতে

এ যেন এক বিচিত্র ডাকাতি! এহেন ডাকাতির কথা আপনারা হয়তো কখনোই শোনেননি। তাও আবার হয়েছে খোদ তৃণমূলের (All India Trinamool Congress) ব্লক সভাপতি সুকুমার ভট্টাচার্যের বাড়িতে। জানা গেছে, রাতের বেলা 6 জন ব্যক্তি মিলে সুকুমার বাবুর বাড়িতে ঢোকে এবং তারা জানায়, তাদের খিদে পেয়েছে।ডাকাতদের এহেন কথা শুনে বাড়ির সকলে অবাক হয়ে যান এবং এরপর ব্যক্তিগুলো নিজেরাই ফ্রিজ খুলে রসগোল্লা এবং ঠান্ডা জল পান করে নেয়। পশ্চিম বর্ধমানের অন্ডাল নামক এলাকায় এই তৃণমূল নেতার বাড়িতে অস্ত্র দেখিয়ে টাকা এবং গয়না লুঠ করে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ ইসিএলের কর্মী এবং তৃণমূলের ব্লক সভাপতি সুকুমার ভট্টাচার্য এর। তাঁর স্ত্রী শ্রাবণী ও ছেলে অনীককে নিয়ে আবাসনে থাকতেন তিনি।

ডাকাতির পর ছেলে ও স্ত্রীকে ধরা হলে ছেলেটি জানায়, “রাত পৌনে তিনটার সময় 6 জন ব্যক্তি আমাদের বাড়িতে ঢোকে এবং তাদের হাতে আগ্নেয়াস্ত্র ছিল। ঘরে ঢুকে তাদের মধ্যে একজন খাবার চায় এবং অন্যরা বাবা কোথায় তা জানতে চায়। এর মধ্যে তাদের নজর রেফ্রিজারেটরে গেলে একজন রসগোল্লার পাত্র বের করে নেয় এবং তা খেতে থাকে।” এরপর ঠাণ্ডা জলের বোতল তারা ভাগ করে খেয়ে নেয় বলে জানিয়েছে সে। প্রসঙ্গত, সুকুমার বাবু সেদিন বাড়িতে উপস্থিত ছিলেন না।

তাঁর স্ত্রী জানান যে, খাওয়া শেষ হতেই দুষ্কৃতীরা নিজেদের আসল রূপ ধারণ করে। তার ছেলের মাথায় আগ্নেয়াস্ত্র ঠেকিয়ে টাকা এবং গয়না কোথায় তা জানতে চায় তারা এবং পরে তাদের হাত থেকে চাবি জোগাড় করে সমস্ত গয়না এবং টাকা নিয়ে তারা পেছনের দরজা দিয়ে পালিয়ে যায়। এরপর সুকুমার বাবু স্ত্রী এর কাছ থেকে পুরো বিষয়টি জেনে সেখানকার স্থানীয় পুলিশ থানায় অভিযোগ জানায়। পুলিশরাও আসরে নেমে পড়েছে বলে খবর।

ঘটনা সামনে আসার পর বিরোধীরা অবশ্য তৃণমূল দলকে নিশানা করেছে। বিজেপি রাজ্য সম্পাদকের কথায়, শাসক দলের নেতার বাড়িতে যদি এমন ভাবে ডাকাতি হয়, তবে বোঝাই যাচ্ছে এলাকার আইনের পরিস্থিতি ঠিক কতটা খারাপ। পরিস্থিতি ভবিষ্যতে কোন দিকে গড়ায় সেদিকে নজর সকলের।

Related Articles