টাইমলাইনফুটবলখেলা

অবশেষে এলো সেই মুহূর্তে, সমর্থকদের মুখে হাসি ফুটিয়ে মরশুমের প্রথম জয় পেল ইস্টবেঙ্গল

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্ক: অবশেষে একটু শান্তি পেলেন লাল হলুদ ভক্তরা। দীর্ঘ ১১ মাস পরে জয়ের মুখ দেখলো এসসি ইস্টবেঙ্গল। মাঝে মরশুমের শুরুতে নতুন কোচ নিয়োগ, শোচনীয় পারফরম্যান্সের জেরে কোচ ছাঁটাই, অন্তর্বর্তীকালীন কোচ হিসেবে রেনেডি সিংয়ের নিয়োগ, ১১ জন ভারতীয় ফুটবলার নিয়ে অসম লড়াই সবকিছু দেখেছেন ইস্টবেঙ্গল ভক্তরা। দেখেছেন এবং সহ্য করেছেন। আইলিগে ইস্টবেঙ্গলকে কোচিং করানো মারিও রিভেরা ফিরতেই চলতি মরশুমে ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের মুখে প্ৰথমবার হাসি ফুটলো। এফসি গোয়ার মত তারকা খচিত দলকে হারিয়ে মরশুমের প্রথম হয় পেল লাল হলুদ ব্রিগেড।

ইস্টবেঙ্গলের আজকের ২-১ ফলে জয়ের পেছনে নায়ক ইস্টবেঙ্গলের তরুণ ফরোয়ার্ড নাওরেম মহেশ। তার জোড়া গোলেই ইস্টবেঙ্গল ভক্তরা ভয়ংকর মরুপথে মরুদ্যানের দেখা পেল। ম্যাচের ৯ মিনিটে ইস্টবেঙ্গল এগিয়ে গেলে ৩৭ মিনিটে আলবার্তো নগুযেরা গোয়াকে সমতায় ফেরান। কিন্ত ৪২ মিনিটে ফের মহেশের গোল থেকেই সমতায় ফেরে ইস্টবেঙ্গল। প্রথমবার চলতি মরশুমে লিড নিয়ে হাফ টাইমে ড্রেসিংরুমে ফেরে ইস্টবেঙ্গল।

দ্বিতীয়ার্ধে আর কোনও গোল হয়নি।আজ অবশ্য একেবারে বিদেশিহীন অবস্থায় মাঠে নামেন ইস্টবেঙ্গল। সেন্টার ব্যাক ফ্রাঙ্কো প্রেসি এবং মিডফিল্ডার ড্যারেল সিডল-কে নিয়ে মাঠে নেমেছিল মারিও রিভেরার দল। দ্বিতীয়ার্ধের বাঁশি বাজার পর থেকেই গোয়া প্রেসিং ফুটবলে ইস্টবেঙ্গল অর্ধে বারবার চাপ তৈরি করেছিল। তবে তা সামাল দিতে সক্ষম হয় ইস্টবেঙ্গল। ফলস্বরূপ আসে প্রথম জয়।

তবে দুটো গোলই ইস্টবেঙ্গল পেয়েছিল গোয়া ডিফেন্সের ভুলে। প্রথমার্ধে এডু বেদিয়া গোলকিপারকে ব্যাক পাস করতে গিয়ে নাওরেম মহেশের পায়ে বল তুলে দেন। সেখান থেকে তরুণ ফরোয়ার্ড গোল করে দলকে এগিয়ে দেন। ৩৭ মিনিটে অর্তিজের থ্রু বল ধরে গোয়াকে সমতায় ফেরান আলবার্তো নগুয়েরা। ৪২ মিনিটে ফের গোয়ার রক্ষণের ভুলের সুযোগ নিয়ে ইস্টবেঙ্গলের হয়ে দ্বিতীয় গোল করেন নাওরেম মহেশ। এরপর অনেক চেষ্টা করেও সমতা ফেরাতে পারেনি গোয়া।

Related Articles

Back to top button