ক্যান্সার আক্রান্ত হয়েও SSC-র দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই, অবশেষে চাকরি পেলেন সোমা

বাংলাহান্ট ডেস্ক : রাজ্যে এসএসসি কেলেঙ্কারি মামলা নিয়ে চলছে বিস্তর জলঘোলা। নাম জড়িয়েছে একের পর এক তাবড় নেতা মন্ত্রীর। শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগে জেরবার স্কুল শিক্ষা দপ্তর। এরই মধ্যে এসএসসির নিয়োগের সুপারিশ পেলেন ক্যান্সার আক্রান্ত চাকরিপ্রার্থী সোমা দাস।

   

এসএসসি নিয়োগ কেলেঙ্কারি নিয়ে তখজ মামলা গড়িয়েছে আদালত এবং সিবিআই অবধি তখন মোটেই নীরব নেই যোগ্য চাকরীপ্রার্থীরা। কলকাতা সহ রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় স্বচ্ছ নিয়োগের দাবীতে ধর্ণা এবং বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন তাঁরা। আর এই বিক্ষোভেই সামিল হয়েছিলেন বীরভূমের নলহাটির বাসিন্দা সোমা দাস। ক্যান্সারের মতন মারাত্মক শারীরিক অসুস্থতাও থামাতে পারেনি তাঁকে। কোনও মতেই তিনি পিছিয়ে আসেননি নিজে ন্যায্য অধিকারের দাবী থেকে।

ক্যান্সার আক্রান্ত হয়েও সোমাদেবীর এই বিক্ষোভে সামিল হওয়ার খবর পান কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। সঙ্গে সঙ্গেই তাঁকে হাইকোর্টে ডেকে পাঠান বর্তমানে কার্যতই ‘প্রবাদপ্রতিম’ হয়ে ওঠা এই বিচারপতি। তিনি সোমা দাসকে ডেকে জানতে চান অন্য কোনও সরকারি চাকরি করতে তিনি রাজি কি না। এহেন প্রশ্নের উত্তরে সরাসরিই না বলে দেন সোমাদেবী। নিজের স্বপ্নে অবিচল থেকে শিক্ষকতাকেই একমাত্র বিকল্প হিসেবে বেছে নেন তিনি।

এদিন এজলাসে দাঁড়িয়েই সোমা দাস বলেন, ‘আমি যোগ্য প্রার্থী। শিক্ষকতাই করব, অন্য কিছু নয়। চাকরি নিয়ে আন্দোলন থেকে সরে যাব না। আমাদের মনে আশা জাগিয়েছেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্য়ায়। লড়াই চলবে।’ এরপর বিচারপতি সোমাদেবীকে স্কুলের শিক্ষিকার পদে নিয়োগ করা নিয়ে বিবেচনা করার নির্দেশ দেন স্কুল শিক্ষা দপ্তরকে। প্রয়োজনে রাজ্যের সর্বোচ্চ প্রশাসকের সঙ্গে কথা বলার অনুরোধও জানান তিনি।

বিচারপতির এই নির্দেশের পর অবশেষে এসএসসিতে নিয়োগের সুপারিশ পেলেন সোমা দাস। ৭ দিনের মধ্যেই তাঁর চাকরির ব্যবস্থা করার নির্দেশিকা জারি করেছিল শিক্ষা দপ্তর। এবার ফল মিলল তাতেই। ক্যান্সার আক্রান্ত সোমার চিকিৎসার জন্য খরচ ১৫ লক্ষ টাকা। এই চাকরির লড়াইয়ে জেতার মতই জীবন যুদ্ধেও জিতে যাবেন সোমা আপাতত এমনটা আশা করাই যায়।