টাইমলাইনটাকা পয়সাভারত

মাত্র ৮৫০ টাকায় মেশিন দিয়ে আজই শুরু করুন এই সুপারহিট ব্যবসা! প্রতিদিন আয় হবে মোটা টাকা

বাংলা হান্ট ডেস্ক: বর্তমান সময়ে যতই দিন এগোচ্ছে ততই দেশের নবীন প্রজন্মদের মধ্যে নতুন নতুন স্টার্স্টআপের (Startup) প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। অর্থাৎ, প্রথাগতভাবে চাকরির পথে না হেঁটে তারা ব্যবসায়িক দিকেই আকৃষ্ট হচ্ছেন। পাশাপাশি, করোনা পরবর্তী সময়ে যখন সর্বত্রই চাকরির একটি আকাল পরিলক্ষিত হয়েছে ঠিক সেই আবহেই এই প্রবণতা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। এদিকে, যুগের সাথে তাল মিলিয়ে এবং বাজারে বাড়তে থাকা চাহিদার সাথে সাযুজ্য রেখেই বিভিন্ন পণ্য উৎপাদন করছেন তাঁরা।

এমতাবস্থায়, আপনিও যদি একদম স্বল্প বিনিয়োগের মাধ্যমে একটি লাভজনক ব্যবসা শুরু করতে চান সেক্ষেত্রে বর্তমান প্ৰতিবেদিনটি নিঃসন্দেহে আপনার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে। মূলত, এই প্ৰতিবেদনে আমরা এমন একটি ব্যবসায়িক উপায় আপনাদের সামনে উপস্থাপিত করব যেটি আপনি বাড়ি থেকেই খুব সহজে শুরু করতে পারেন। আজ আমরা পটেটো চিপস বা আলুর চিপস (Potato Chips Manufacturing Business) তৈরির ব্যবসার বিষয়টি তুলে ধরব।

করতে হবে মাত্র ৮৫০ টাকার বিনিয়োগ: এমনিতেই কোনো ব্যবসা শুরু করতে গেলে কমপক্ষে ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকার প্রয়োজন হয়, কিন্তু এই ব্যবসাটি শুরু করতে আপনার মাত্র ৮৫০ টাকা দামের একটি মেশিনের প্রয়োজন হবে। এই মেশিনের সাহায্যেই আপনি কাজটি করতে পারবেন। পাশাপাশি, মেশিনটি আপনি অনলাইন মারফতও কিনে নিতে পারবেন। সর্বোপরি, এই মেশনটি চালানোর জন্য কোনো বিদ্যুতের প্রয়োজন হয় না। এদিকে, সময়ের সাথে সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে আলুর চিপসের চাহিদা। তাই, এই ব্যবসার মাধ্যমে আপনি মোটা টাকা উপার্জনও করতে পারবেন।

এই ব্যবসার জন্য প্রয়োজনীয় কাঁচামাল হল আলু। যা আপনি বাজার থেকেই পেয়ে যাবেন। এমতাবস্থায়, মেশিনটিকে একটি টেবিলে স্থাপন করে আপনি চিপস প্রস্তুতির কাজ শুরু করতে পারেন। এদিকে, এই চিপস তৈরির পর বিভিন্নভাবে আপনি সেগুলিকে বিক্রি করতে পারবেন। হয় কোনো স্টলের মাধ্যমে, নয়তো সেগুলিকে প্যাকেটজাত করে সরাসরি বড় বড় দোকানে পৌঁছে দিয়েও বিক্রি করা যাবে। কিছুদিন ব্যবসাটি চালানোর পরেই আপনার যোগাযোগ বৃদ্ধি পেতে থাকবে এবং চাহিদাও বাড়বে। আর এভাবেই ব্যবসার সম্প্রসারণও ঘটবে।

কত হবে লাভ: আলুর চিপস তৈরির ব্যবসায় আপনি কাঁচামালের পেছনে যত খরচ করবেন তার চেয়ে প্রায় ৭ থেকে ৮ গুণ বেশি লাভ করতে পারবেন। আপনি যদি, দৈনিক ১০ কেজি আলুর চিপস বিক্রি করতে পারেন সেক্ষেত্রে আপনি খুব সহজেই হাজার টাকা পর্যন্ত লাভ করতে পারেন। সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, এটা এমনই একটি ব্যবসা যেটিতে বড় বিনিয়োগের কোনো প্রয়োজন হয় না। তাই, ব্যবসায় ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনাও একদমই থাকে না।

Related Articles