ভক্তদের অপেক্ষা সার্থক, DNA টেস্টের রিপোর্ট সূর্যর হাতে! ফাঁস ‘অনুরাগের ছোঁয়া’র জমজমাট প্রোমো

বাংলা হান্ট ডেস্ক : দীপাকে (Deepa) ভুল বোঝাই যেন তার একমাত্র কাজ। দুনিয়ার আর কাউকে বিশ্বাস করেনা সে, একমাত্র বেস্ট ফ্রেন্ড মিশকার ছাড়া‌। ‘অনুরাগের ছোঁয়া’র (Anurager Chhowa) ভক্তদের কাছে কবে যে সে হিরো থেকে ভিলেইন হয়ে উঠেছে তা বোধহয় সে নিজেও জানেনা। তবুও ভক্তদের প্রার্থনা সূর্য-দীপার যেন মিল হয়ে যায়। আর এবার বোধহয় সেটাই সত্যি হতে চলেছে।

সিরিয়ালটির নিয়মিত দর্শকরা জানেন যে, সূর্য এখন সোনা আর রূপাকে নিয়ে অনেক দূরে চলে গিয়েছে। সেখানে এক মিশনারি স্কুলে ভর্তি করে দেয় সোনা রূপাকে। খুঁজতে খুঁজতে দীপাও পৌঁছে যায় সেখানে। আর সেখানে পৌঁছে ঘটে যায় বিপত্তি। সূর্যর কথা ভেবে দুই মেয়ে তাদের মা-কে চিনতে অস্বীকার করলে সেখান থেকে হতাশ হয়ে বেরিয়ে যায় দীপা।

   

এরপর রাস্তায় দূর্ঘটনার শিকার হয় সে‌। আর ভাগ্যচক্রে দীপাকে সেই হাসপাতালেই নিয়ে যাওয়া হয় যেখানে সূর্য পোস্টেড। সবটা জানতে পেরে সূর্য দীপাকে বাঁচানোর জন্য নিজের জান প্রান লড়িয়ে দেয়। একমুহুর্তের জন্য দীপাকে মৃত মনে হলেও আবার জীবনের ডাকে ফিরে আসে সে। তাছাড়া সূর্যকে ছেড়ে সে আর যাবেই বা কোথায়?

আর এসবের মধ্যেই প্রকাশ্যে এসেছে সিরিয়ালের নতুন প্রোমো। যা দেখার পর ভক্তদের খুশি যে বাঁধ মানছে না। চ্যানেলের অফশিয়াল সাইট থেকে সম্প্রচারিত এই প্রোমোতে দেখা যাচ্ছে, হন্তদন্ত হয়ে হাসপাতালে ঢুকছে সূর্য। ডাক্তারকে জিজ্ঞেস করে, ‘DNA টেস্টের রিপোর্ট কি এসেছে?’ আর তারপরেই আসল বোমা ফাটায় ঐ ডাক্তারটি।

সে জানায়, ‘সূর্য সেনগুপ্তই বায়োলজিক্যাল ফাদার।’ আর এটা শুনেই আকাশ থেকে পড়ে সে। এতদিনের ভুল ধারণা এক নিমেষে ভেঙে চুরে গুড়িয়ে যায়। সূর্য বুঝতে পারে কবির নয়, সোনা রূপার আসল বাবা সে নিজেই। আর এটা জানার পরেই সূর্য ছুটে যায় দীপার কাছে। কাতর কন্ঠে ক্ষমা চেয়ে বলে, দীপা কি সব অপমান ভুলে একবার তাকে ক্ষমা করে দিতে পারবে?

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Star Jalsha (@starjalsha)

 

আপাতত এইটুকুই দেখানো হয়েছে প্রোমোতে। হাসপাতালের ডেকোরেশন এবং দীপাকে হাসপাতালের বেডে শুয়ে থাকতে দেখে মনে হচ্ছে এই ধামাকাদার পর্বের আর খুব বেশি দেরি নেই। খুব শীঘ্রই সমস্ত মিথ্যার উপর থেকে পর্দা উঠতে চলেছে। আপাতত দর্শকরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে আছেন ঠিক কবে এই এপিসোড সম্প্রচারিত হবে! এবং এরপর মিশকার কী হাল হয়? জানতে হলে চোখ রাখুন স্টার জলসায়।

Moumita Mondal
Moumita Mondal

মৌমিতা মণ্ডল, গ্র্যাজুয়েশনের পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। বিগত ৩ বছরেরও বেশি সময় ধরে লেখালেখির সাথে যুক্ত। প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর