টাইমলাইনলাইফস্টাইল

কাজের চাপে নিজের এই গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গের যত্ন নিতেই ভুলে যাচ্ছেন না তো? তাহলে কিন্তু বড় বিপদ

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ চোখ যে মানুষের জীবনে কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা নতুন করে বলার নেই। কিন্তু চোখ মানব দেহের সবথেকে স্পর্শকাতর। তাই আমাদের উচিত চোখের যত্ন নেওয়া। আর চোখের মধ্যে ধুলো বালি যাতে না পারে, চোখ সুস্থ থাকে তা খেয়াল রাখা দরকার। কিন্তু কাজের ব্যস্ততার মধ্যে আমরা আজকাল শরীরের যত্ন নিতে ভুলে যাই ।

তার থেকেও বেশী রোজকার কাজের চাপ মানসিক এবং শারীরিক চাপ আমাদের চোখকে প্রভাবিত করে। চোখের মধ্যে যে আলো পড়ে তা আমদের চোখের স্নায়ুর মারাত্মক ক্ষতি করে। আর চোখের মধ্যে এই আলো পড়ে আমদের দেখতে পাওয়ার ক্ষমতা কমতে শুরু করে।

যে সমস্যা মূলত দেখা যায় সেগুলো এড়ানোর জন্য যা করতে হবে একটানা কাজ করবেন না। মাঝে মাঝে চোখ বন্ধ করে চোখকে বিশ্রামও দিন। এতে দৃষ্টিশক্তি ভালো থাকে। কাজের ফাঁকে ফাঁকে চোখকে বিশ্রাম দিতে হবে।

৩০ মিনিট পর পর কাজ বন্ধ রাখুন দুই থেকে তিন মিনিটের জন্য। এতে চোখের রক্ত সরবরাহ বাড়বে এবং চোখের পেশি সক্রিয় থাকবে।

প্রতি তিন থেকে চার সেকেন্ড পর পর চোখের পাতা ফেলা চোখের ছোটখাটো সমস্যার সমাধান করে। তাই ঘন ঘন চোখের পাতা ফেলতে হবে।

চোখ ভালো রাখতে কম্পিটারের আলোর সমন্বয় করে নিতে হবে। কম্পিউটার ও মোবাইল ফোন অতিরিক্ত ব্যবহার করলে চোখের রেটিনা শুকিয়ে যাওয়ার সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই এই ‘আই ব্লিংকিং’ ব্যায়াম করলে চোখ ভালো থাকে।

সবুজ গাছ দেখতে হবে। ঘুম থেকে উঠে সবুজ ঘাসের ওপর দিয়ে হাটতে হবে।

মাঝেমধ্যে চোখে জলের ঝাপটা দিতে হবে। সারা দিনে ১০ থেকে ১৫ বার চোখে জলের ঝাপটা দিতে পারেন। চোখের জলের ঝাপটা দিলে চোখ আর্দ্র হয় ও রক্ত সঞ্চালন বাড়ে।

প্রচুর  সবুজ শাকসবজি, বাদাম, ফল, কমলালেবু খেতে হবে।

পর্যাপ্ত ঘুমাতে হবে, কম করে দিনে ৮ ঘন্টা ঘুমাতেই হবে।

Related Articles

Back to top button