আম্বানির নিরাপত্তায় ব্যবহৃত হয় এই ভয়ানক বন্দুক! একবার ট্রিগার চাপলেই “খেলা শেষ” হবে শত্রুদের

বাংলা হান্ট ডেস্ক: বর্তমান সময়ে ভারতের সবথেকে ধনী ব্যক্তি হিসেবে বিবেচিত হচ্ছেন মুকেশ আম্বানি (Mukesh Ambani)। শুধু তাই নয়, মোট সম্পদের পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্বের শ্রেষ্ঠ ধনুকেরদের সাথেও তাঁর কড়া টক্কর চলে। এমতাবস্থায়, এই ধনকুবেরের জীবনযাপন যে অত্যন্ত রাজকীয় হবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। পাশাপাশি, তাঁকে কঠোর নিরাপত্তাও প্রদান করা হয়।

জানিয়ে রাখি যে, আম্বানি ভারত সরকারের কাছ থেকে জেড প্লাস নিরাপত্তা পেয়েছেন। এছাড়াও, আম্বানি পরিবারের প্রাইভেট সিকিউরিটিও রয়েছে। যা অত্যন্ত হাই-টেক। কিন্তু আজ আমরা আপনাদেরকে আম্বানি পরিবারের নিরাপত্তার জন্য নিরাপত্তারক্ষীদের কাছে থাকা বিশেষ বন্দুকের বিষয়ে জানাব। যেটি জানার পর রীতিমতো অবাক হয়ে যাবেন প্রত্যেকেই।

   

আম্বানি পরিবারের নিরাপত্তা কেমন: প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, আম্বানি পরিবারের কোনো ব্যক্তি বাইরে গেলে প্রায় ৫৮ জন বা তারও বেশি নিরাপত্তারক্ষী নিরাপত্তার কাজে নিয়োজিত থাকেন। এর পাশাপাশি আম্বানি পরিবারের গাড়ির কনভয়ে একাধিক বুলেটপ্রুফ গাড়িও যায়।

আম্বানি পরিবারের নিরাপত্তায় একাধিক স্তর রয়েছে। যেমন কমান্ডো, সিআরপিএফ, পুলিশ এবং তার সাথে তাঁদের ব্যক্তিগত রক্ষী। উল্লেখ্য যে, আম্বানি ভারতের সবথেকে ধনী ব্যক্তি হওয়ার পাশাপাশি তিনি দেশের অর্থনীতিকেও শক্তিশালী করতে সাহায্য করেন। তাই, তিনি যে এই কড়া নিরাপত্তা পাবেন তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

আম্বানি পরিবারের নিরাপত্তায় নিয়োজিত রক্ষীদের কাছে এই বন্দুক রয়েছে: মুকেশ আম্বানির পরিবারের নিরাপত্তায় নিয়োজিত রক্ষীদের কাছে জার্মানিতে তৈরি হেকলার অ্যান্ড কোচ MP5 সাব-মেশিনগান রয়েছে। এটি এমন একটি বন্দুক যা এক মিনিটে ৮০০ রাউন্ড ফায়ার করতে পারে। অর্থাৎ শত্রুকে টার্গেট করার পর যদি এই বন্দুকের ট্রিগারে চাপ দেয়া হয়, সেক্ষেত্রে ওই বন্দুক ভয়াবহ হয়ে উঠতে পারে।

This terrible gun is used in the security of Ambani

১৯৬০ সালে প্রথম তৈরি হওয়া এই বন্দুকটি এখন বিশ্বের ৭০ টিরও বেশি দেশের নিরাপত্তারক্ষীরা ব্যবহার করেন। সবথেকে উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, এই বন্দুকের শতাধিক ভেরিয়েন্টও রয়েছে। আম্বানি পরিবারের নিরাপত্তায় নিয়োজিত রক্ষীদের কাছে এই বন্দুকগুলি থাকার কারণ হল, এগুলির ওজন মাত্র ২.৫৪ কেজি এবং দৈর্ঘ্য মাত্র ২৭ ইঞ্চি। সেই সাথে এই বন্দুক থেকে গুলি প্রতি সেকেন্ডে ৪০০ মিটার বেগে লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে যেতে পারে।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর