ক্ষেপে লাল মুসলিমরা! অযোধ্যায় মসজিদের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনে মোদীকে আমন্ত্রণ জানাবে না ওয়াকফ বোর্ড

বাংলা হান্ট ডেস্ক: আগামী বছরের ২২ জানুয়ারি অযোধ্যায় (Ayodhya) রামমন্দিরের (Ram Mandir) উদ্বোধন হবে। খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (PM Narendra Modi) এই বহু প্রতীক্ষিত রামমন্দির উদ্বোধন করবেন‌। কিন্তু অন্যদিকে, অযোধ্যায় নতুন মসজিদের (Mosque) ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হবে না প্রধানমন্ত্রীকে। শনিবার প্রস্তাবিত মসজিদের নকশা প্রকাশ করে এমনটাই জানিয়েছে, উত্তরপ্রদেশ (Uttar Pradesh) সুন্নি সেন্ট্রাল ওয়াকফ বোর্ড।

উল্লেখ্য, অযোধ্যার অদূরে ধন্নিপুরে (Dhannipur) সরকারের দেওয়া পাঁচ একর জমিতে মসজিদ নির্মাণের দায়িত্বে রয়েছে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড (Uttar Pradesh Sunni Central Waqf Board) নিয়ন্ত্রিত সংগঠন ‘ইন্দো-ইসলামিক কালচারাল ফাউন্ডেশন ট্রাস্ট’। শুক্রবার প্রকাশিত বেশ কয়েকটি প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছিল, মোদীকে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হবে। কিন্তু ‘ইন্দো-ইসলামিক কালচারাল ফাউন্ডেশন ট্রাস্ট’-এর মুখপাত্র আতাউর হোসেন (Ataur Hosain) বলেন, ‘এমন কোনও পরিকল্পনা আমাদের নেই।’ উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ৫ আগস্ট অযোধ্যায় ভূমি পূজন করে রামমন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

   

Babri Masjid

২০১৯ সালের ৯ নভেম্বর অযোধ্যা মামলায় সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court) ঐতিহাসিক রায় দেয়। বলা হয়, আগে যে জায়গায় বাবরি মসজিদ (Babri Masjid) ছিল সেখানেই রামমন্দির তৈরি করা হবে। আর অযোধ্যার অন্যত্র মসজিদ তৈরি করার জন্য সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে ৫ একর জায়গা দিতে হবে সরকারকে। যদিও মামলাকারী ইকবাল আনসারী দাবি করেছিলেন, ২.৭৭ একরের বিতর্কিত জমি ঘিরে কেন্দ্রের অধিকৃত ৬৭ একর জমির মধ্যেই মসজিদের জন্য জমি দিতে হবে। কিন্তু তা নিয়েও বিতর্ক শুরু হয়। শেষ পর্যন্ত ১৪ ক্রোশের পরিক্রমা পথের বাইরে ধন্নিপুরে ওয়াকফ বোর্ডকে জমি দেওয়া হয়।

সেই জমিতেই মসজিদের পাশাপাশি হাসপাতাল, গ্রন্থাগার এবং কমিউনিটি কিচেন তৈরি করতে চলেছে ফাউন্ডেশন ট্রাস্ট।

Avatar
Monojit

সম্পর্কিত খবর