মণিপুরের পর রাজস্থান, গর্ভবতী মহিলাকে নগ্ন করে ঘোরানো হল গোটা গ্রাম! নৃশংসতা ধরা পড়ল ভিডিওতে

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ রাজস্থানের প্রতাপগড় জেলা থেকে মানবতাকে লজ্জায় ফেলে দেওয়ার মতো ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছে। সেখানে এক গর্ভবতী মহিলা বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। এরপর স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাকে নির্বস্ত্র করে প্রায় ১ কিলোমিটার হাঁটায়। ঘটনাটি ৩১শে আগস্টের। সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘটনাটির ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার পর অভিযুক্তর তল্লাশিতে জুটেছে পুলিশ।

   

মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, ঘটনাটি প্রতাপগড় জেলার ধারিয়াবাদ থানা এলাকার পাহাড়া গ্রামের। বলা হচ্ছে, সেখানে বসবাসকারী এক মহিলার এক যুবকের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ৩১ আগস্ট  মহিলাটি তার প্রেমিকের সাথে পালিয়ে যায়। পরিবারের লোকজন বিষয়টি জানতে পেরে দুজনকেই ধরে ফেলে। এর পর ওই মহিলাকে নগ্ন করে গ্রামে নিয়ে যাওয়া হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, গত ৩১ আগস্ট ওই মহিলা পাড়ায়ই এক যুবকের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন। খবর পেয়ে শ্বশুরবাড়ির লোকজনও সেখানে পৌঁছায়। প্রথমে তারা মহিলাকে ধরে মারধর করে। এরপর তাকে উলঙ্গ করে গ্রামে ঘোরানো হয়।

এই মর্মান্তিক ঘটনার ভিডিও সামনে এসেছে। ভাইরাল মহিলাকে আর্তনাদ করতে দেখা যাচ্ছে। নিজেকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য কাতর আবেদন করতে দেখা যাচ্ছে তাঁকে। কিন্তু তার স্বামী কোনোরকম মায়াদয়া না দেখিয়ে তাঁকে নগ্ন করায় ব্যস্ত। পাশে দাঁড়িয়ে থাকা লোকজনকেও তার স্বামীকে উস্কানি দিতে দেখা যায়। কয়েকজনকে ভিডিও করতেও দেখা যায়। মহিলাকে নগ্ন করার পর অভিযুক্তরা তাকে গ্রামে ঘোরায়।

এ বিষয়ে প্রতাপগড়ের এসপি অমিত কুমার জানিয়েছেন, বিষয়টি নজরে আসার পর পুলিশের ৬টি দল গঠন করা হয়েছে। এছাড়া ধারিয়াবাদ থানায় পূর্বে কর্মরত সকল কনস্টেবল ও সিনিয়র অফিসারদের ডাকা হয়েছে। এ ঘটনায় নির্যাতিতার পক্ষ একটি মামলা দায়ের করেছে এবং পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, কিছুদিন আগে অশান্ত মণিপুর থেকে এমনই এক ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল। যেখানে এক মহিলাকে গণধর্ষণের পর তাঁকে রাস্তায় নগ্ন ঘোরানো হয়েছিল। সেই মর্মান্তিক দৃশ্য দেখে স্তব্ধ হয়ে গিয়েছিল গোটা ভারত। চারিদিক থেকেই প্রতিবাদের ঝড় উঠেছিল। এমনকি বিরোধী দলগুলো এর সংসদ ভবনও অচল করে দিয়েছিল।

দেশের প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস এর প্রতিবাদে ধরনাও দিয়েছিল। কিন্তু বর্তমানে কংগ্রেস শাসিত রাজ্যে এই বর্বর ঘটনা হয়ে যাওয়ার পর রাহুল গান্ধীদের এই নিয়ে মুখ খুলতে দেখা যায়নি। উল্টে রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট দাবি করেছেন যে, মহিলার শ্বশুরবাড়ির সঙ্গে বিবাদের জেরে এই ঘটনা ঘটেছে। যদিও তিনি এই ঘটনায় দোষীদের কড়া শাস্তি দেওয়ারও বার্তা দিয়েছেন।

সম্পর্কিত খবর