‘ডিউটি শেষ’ বলে ট্রেন থেকে নেমে পড়লেন লোক পাইলট! মাঝ পথেই আটকে পড়লেন ২৫০০ যাত্রী

বাংলাহান্ট ডেস্ক: সরকারি হোক কিংবা বেসরকারি কিছু কিছু পেশার মানুষদের দায়িত্ব এতটাই বেশি থাকে যে, তাদের সামান্য ভুল সিদ্ধান্তের কারণে বিপদে পড়তে পারেন হাজার হাজার সাধারণ নাগরিক। কিন্তু, এইসব বিশেষ পেশার মানুষ যদি শিফট শেষ হওয়ার সাথে সাথে কাজ বন্ধ করে দেন, তখন বিষয়টি সত্যিই ভয়ঙ্কর সমস্যা তৈরি করে।

   

সমস্যার সূত্রপাত: 

এবার ভারতীয় রেলের তেমনই একটি ঘটনা প্রকাশ্যে এলো। জানা গিয়েছ, উত্তরপ্রদেশের বারাবাঙ্কি জেলার বুড়ওয়াল জংশনে দুটি ট্রেনের প্রায় ২৫০০ জন যাত্রী আটকে পড়ায় ব্যাপক বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে প্রযুক্তিগত কোন ত্রুটি না থাকার পরেও যাত্রীদের  ভয়াবহ ভোগান্তির জেরে ভারতীয় রেলের পরিষেবা নিয়ে নানান ধরনের প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

আরোও পড়ুন : বড় ঝটকা চিনে, ভারতে ১৩ হাজার কোটির বেশি বিনিয়োগের প্ল্যান iPhone নির্মাণকারী ফক্সকনের

ঠিক কি কারনে বন্ধ হয়ে গেল এই ট্রেন দুটি? 

জানা গিয়েছে, শুধুমাত্র শিফট্ শেষ হয়ে যাওয়ার জন্য একটি এক্সপ্রেসের লোকো পাইলট আচমকা ট্রেন চালানো বন্ধ করে দেন। তারপরেই রীতিমতো শোরগোল পড়ে যায়। অন্য ট্রেনের লোকো পাইলট অবশ্য শারীরিক অস্বস্তির কথা উল্লেখ করেন। আর এই ঘটনাটি যে দুটি ট্রেনে হয়েছিল সেগুলো হল সহরসা-নয়াদিল্লি ছট পূজা স্পেশাল (04021) এবং বারাউনি-লখনউ জংশন এক্সপ্রেস (15203)।

up train loot

তোলপাড় শুরু যাত্রীদের :

এদিকে, ট্রেনের ভেতরে জল, খাবার ও বিদ্যুতের না থাকায় যাত্রীরা এক্সপ্রেস ট্রেন চলাচলে বাধা দিতে থাকে। এমনকি তারা রেললাইনে নেমেও স্লোগান দিতে থাকে। অনেক সময় পরে, উত্তর পূর্ব রেলের আধিকারিকরা পরিস্থিতি শান্ত করতে গোন্ডা জংশন থেকে দুটি এক্সপ্রেস ট্রেনের দেখাশোনা করার জন্য কর্মীদের পাঠায়।

সম্পর্কিত খবর