টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

রান্নাঘর থেকে বেরিয়ে এল একসাথে ৩২ টি গোখরো সাপ, আতঙ্কে পুরো গ্রাম

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ রান্নাঘর ঘরের ভিতর থেকে এক এক করে বেরিয়ে আসছে বিষধর গোখরো। সব মিলিয়ে ৩২টি বিষধর গোখরো! এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে  আতঙ্কিত এলাকার বাসিন্দারা। ঘটানাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের (East Burdwan) জামালপুর থানার বেরুগ্রামের।

জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার ঠিক তখন বেলা ১২টা। রান্না ঘরে বসে কাজ করছিলেন বেরুগ্রাম শিবতলার বাসিন্দা মৌসুমী ধারা। মৌসুমীদেবী বলেন, ‘রান্নার ফাঁকে হঠাৎ লক্ষ্য করি পিছনের দিক থেকে একটি সাপ বেরিয়ে আসছে। ভয় পেয়ে সেখান থেকে পালিয়ে যাই। আমার চিৎকারে বাড়ির অন্যান্যরা ছুটে আসে। কিছুক্ষণ পর দেখা যায় একটি নয়, তিনটি সাপ বেরিয়ে আসছে ঘরের মেঝের গর্ত থেকে। তারপর তো দলে দলে বের হতে লাগলো। ভয়ে শরীর ঠান্ডা হয়ে যাচ্ছে। ‘

আরও সাপ রয়েছে এই আশঙ্কায় সিঁটিয়ে রয়েছেন বাড়ির লোকজন, পাড়া-প্রতিবেশীরা। বন দফতর এসে খুঁজে পেতে বাকি সাপগুলোকেও ধরে নিয়ে যাক সেটাই এখন চাইছেন বাসিন্দারা।

বাড়ির বাসিন্দা কার্তিক ধারা বলেন, ‘বাড়িতে সাপ তাড়ানোর জন্য কার্বোলিক অ্যাসিড ছিল। গর্তের কাছে সেই অ্যাসিড দিয়ে দিই এবং তারপরই দলে দলে বিষধর সাপেরা বেরিয়ে আসতে থাকে। তবে সাপগুলি ছোট। সেগুলি গোখরো সাপের বাচ্চা। ৩২টি সাপ বেরিয়ে আসে। তাদের একটি বালতিতে রাখা হয়। পরে সেই সাপগুলিকে বনদফতরের হাতে তুলে দেওয়া হয়। ঘরে যে এতো সাপ রয়েছে তা আগে টের পাইনি।’

গ্রামের বাসিন্দা মৃত্যুঞ্জয় মালিক বলেন, ‘বাড়ির ভেতর গর্ত খুঁড়ে বিষধর গোখরো যে বাধা বাসা বেঁধেছিল তা আগাম টের পাওয়া যায়নি। সেই সাপের বাচ্চা এগুলি। বড় সাপগুলিও তাই সেখানে রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। আর এতেই ভয় পাচ্ছি আমরা। আমরা চাই বন দফতরের কর্মীরা এসে গর্ত খুঁড়ে বড় সাপ গুলোকেও ধরে নিয়ে যাক। ‘ এক সঙ্গে অনেক গোখরো বেরতে থাকায় বাড়ির সামনে ভিড় করে স্থানীয়রা।

Back to top button