টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

মদ বিক্রিতে মোটা মুনাফা কামাচ্ছে পশ্চিমবাংলাও, একদিনেই রাজস্ব মিলল ৪০ কোটি

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ তলানিতে ঠেকা অর্থনীতির ভোল বদলে, রাজ্য (West bengal) সরকারের একদিনেই আয় প্রায় ৪০ কোটি টাকা। অবাক হলেও, ধ্রুব সত্য। লকডাউনের তৃতীয় দফায় মদের (Alcohol) দোকান খোলার অনুমতি মিলতেই, লম্বা লাইন পড়ে গেছিল দোকানের বাইরে। আর তাঁর জেরেই প্রথম দিনেই ৪০ কোটি অর্থ রাজস্ব আদায় হল রাজ্য সরকারের।

 

রাজ্যে করোনা ভাইরাসের পরবর্তী পরিস্থিতি                                                                                                      রাজ্যে করোনা ভাইরাসের (COVID-19) জেরে জারী হওয়া লকডাউনকে কেন্দ্র করে বন্ধ রাখা হয়েছিল সমস্ত দোকানপাঠ। এমনকি সংক্রমণের ভিত্তিতে ভাগ করে দেওয়া হয়েছে রেড, অরেঞ্জ এবং গ্রীন জোন। সম্প্রতি অরেঞ্জ এবং রেড জোনে কিছু কিছু দোকান পাঠের অপর থেকে লকডাউনের বিধি নিষেধ শিথিল করা হয়েছে। তবে সোমবার থেকে সুরা প্রেমীদের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে মদের দোকানও।

একদিনেই ৪০ কোটি টাকা রাজস্ব আদায় রাজ্যের                                                                                                  লকডাউনের বাজারে মদপ্রেমিদের কথা বিবেচনা করে সরকার সোমবার থেকেই মদের দোকানের উপর থেকে লকডাউনের বিধি নিষেধ তুলে নিয়েছেন। অরেঞ্জ, গ্রীন এমনকি রেড জোনেও খুলে দেওয়া হয়েছে মদের দোকান। বাদ পড়েছে শুধুমাত্র কন্টেনমেন্ট জোন। তবে টানা ৪২ দিন বন্ধ থাকার পর মদের দোকান খোলায় প্রথম দিনেই রাজ্য সরকারের আয় হল ৪০ কোটি টাকা। মঙ্গলবার এমনটাই জানা গিয়েছে আবগারি দফতর সূত্রে।

বিকেল ৩টে থেকে সন্ধে ৬টা পর্যন্ত মদের দোকানগুলি খোলা রাখলে বিক্রির পরিমাণ আরও বাড়বে                  প্রথম দিনেই এই বিপুল পরিমাণ অর্থ লাভে রাজ্যের অফ শপ, অন শপ, হোটেল মালিকদের সংগঠনের তরফে সহকারী সচিব সুস্মিতা মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ‘কন্টেনমেন্ট জোনের ৩০ শতাংশ মদের দোকান বাদে রেড, অরেঞ্জ এবং কমলা জোনের প্রায় ৭০ শতাংশ মদের দোকান খুলে দেওয়া হয়েছে। এবং প্রথম দিনেই প্রায় ৪০ কোটি অর্থ আদায় হয়েছে রাজ্যের কোষাগারে। তবে দুপুর ৩ টে থেকে সন্ধ্যে ৬ টা পর্যন্ত সময়ে দোকান খোলা থাকলে, আরও বিক্রি বাড়বে বলে মনে করা হচ্ছে’।

মদের দোকানের ভিড় সামলাতে মোতায়েন করা হল সিভিক ভলেন্টিয়ার                                                              দীর্ঘ দিন পর মদের দোকান খোলায় লাইন পড়েছিল দেখবার মত। উপছে পড়েছিল মানুষের ভিড়। সামাজিক দূরত্বের বালাই ছিল না প্রথম দিকে। পরবর্তীতে সিভিক ভলেন্টিয়ারের সহাওতায় লাইন নিয়ন্ত্রণ করা হয় এবং মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতা মূলক করা হয়।

অনলাইনেও পাওয়া যাবে মদ                                                                                                                          দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে না থেকে এবার থেকে অনলাইনেও পাওয়া যাবে মদ। তবে ক্রেতার বয়স অবশ্যই ২১-র বেশি হতে হবে। এই সুবিধা আগামী ১ সপ্তাহের মধ্যেই পাওয়া যেতে পারে।

Back to top button