আরও ৪%! ভোটের আগেই ফের DA বাড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী, কবে থেকে মিলবে?

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ শিয়রে লোকসভা নির্বাচন। এই আবহেই ফের এক দফায় ডিএ বাড়ছে (DA Hike) রাজ্য সরকারি কর্মীদের। নতুন করে মহার্ঘ ভাতা (ডিয়ারনেস অ্যালোওয়েন্স বা ডিএ) বাড়তে চলেছে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের। টুইট করে নিজেই একথা জানিয়ে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে রাজ্য সরকারের এই পদক্ষেপের পরও কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের থেকে কম হারেই ডিএ (Dearness Allowance) পাবেন রাজ্য সরকারি কর্মীরা।

   

রাজ্যের সরকারি কর্মচারীদের কথা মাথায় রেখে ফের এক ধাক্কায় ৪ শতাংশ ডিএ বৃদ্ধির ঘোষণা করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। এই বিষয়ে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ‘এক্স’-এ টুইট করে হিমাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী সুখবিন্দর সিং সুখি জানান, ‘রাজ্য সরকার চার শতাংশ ডিএ বাড়ানোর ঘোষণা করা হল। রাজ্যের প্রতিটি অংশের মানুষের সমৃদ্ধির সংকল্প নিয়েছি আমরা। রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের আর্থিক অবস্থা আরও মজবুত এবং তাদের ভবিষ্যৎ আরও সুরক্ষিত করার জন্য রাজ্য সরকার বদ্ধপরিকর।’

মুখ্যমন্ত্রী জানান, ২০২২ সালের জুলাই মাস থেকে বর্ধিত মহার্ঘ ভাতা বকেয়া প্রদান করা হবে। এই বিষয়ে রাজ্যের অর্থ দফতরের তরফে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। জানিয়ে রাখি, হিমাচল প্রদেশের রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা এত দিন ৩৪ শতাংশ হারে ডিএ পেতেন। এবার থেকে তারা ৩৮ শতাংশ হারে ডিএ পাবেন।

রাজ্য সরকার জানিয়েছে, সমস্ত রাজ্য সরকারি কর্মচারী, অল-ইন্ডিয়া সার্ভিসের অফিসার, হিমাচল প্রদেশের জুডিশিয়াল সার্ভিসের অফিসার এবং বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের আওতায় থাকা রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের এই বর্ধিত হারে মহার্ঘ ভাতা প্রদান করা হবে।

da hike

আরও পড়ুন: ‘রাজীব গান্ধীকেও পিছন থেকে ছুরি মেরেছেন মমতা’, ‘গদ্দার’ ইস্যুতে মমতাকে ফালাফালা আক্রমণ শুভেন্দুর

২০২৪ সালের ১ এপ্রিল থেকে বর্ধিত হারে মহার্ঘ ভাতা পাবেন রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা। পাশাপাশি আগামী মাস থেকেই রাজ্য সরকারের অবসরপ্রাপ্ত কর্মীরা অর্থাৎ পেনশনভোগীরাও ৩৮ শতাংশ হারে ডিয়ারনেস রিলিফ (ডিআর) এর সুবিধা পাবেন। এখানে উল্লেখ করা যেতে পারে, বর্তমানে ৪৬% হারে ডিএ পাচ্ছেন কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীরা। চলতি মার্চ মাসেই তা বৃদ্ধি পেয়ে ৫০% হতে পারে বলে শোনা যাচ্ছে। সেখানে হিমাচলে রাজ্য সরকারি কর্মীদের বেতন বৃদ্ধি পেয়ে হল ৩৮ শতাংশ।

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর