ভগবানের সঙ্গেও ছলচাতুরি! মন্দিরকে ১০০ কোটির চেক দিলেন ভক্ত, টাকা তুলতে গিয়ে যা হল! জেনে ভিরমি খাবেন

বাংলা হান্ট ডেস্ক: মন্দির (Temple) থেকে শুরু করে যেকোনো ধর্মীয় স্থানে অর্থ দান করেন সবাই। তবে, এবার এই প্রসঙ্গেই একটি তুমুল চাঞ্চল্যকর বিষয় সামনে এল। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, একজন ভক্ত মন্দিরের দান বাক্সে ১০০ কোটি টাকার চেক রেখেছিলেন। মন্দিরের কর্মীরা ওই বাক্স খোলার পর সেই চেকটি পান। তারপরেই সেটিকে ব্যাঙ্কে নিয়ে দেখা যায় যে, জালিয়াতির শিকার হয়েছেন স্বয়ং ঈশ্বরই!

সবথেকে উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, যে ব্যক্তি দান বাক্সে ১০০ কোটি টাকার চেক রেখেছিলেন তাঁর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ছিল মাত্র ১৭ টাকা। এই চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রী বরাহলক্ষ্মী নরসিংহ স্বামী মন্দিরে। তথ্য অনুযায়ী, ওই ব্যক্তি সিংহচলমের শ্রী বরাহলক্ষ্মী নরসিংহ স্বামী মন্দিরের দান বাক্সে ১০০ কোটি টাকার চেক জমা করেছিলেন। মন্দির কর্তৃপক্ষ যখন চেকটি ব্যাঙ্কে পাঠায়, তখন সবাই রীতিমতো অবাক হয়ে যান। কারণ, চেক জমা দেওয়া ব্যক্তির অ্যাকাউন্টে ছিল মাত্র ১৭ টাকা।

A person gave a check of 100 crores in the donation box of the temple

চেকটির ছবি ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়: এদিকে, ইতিমধ্যেই গত বৃহস্পতিবার ওই চেকের ছবি ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ওই চেকে স্বাক্ষর রয়েছে বোডডেপল্লী রাধাকৃষ্ণ নামের এক ব্যক্তির। তিনি চেকে তারিখ লেখেননি এবং চেকটি ছিল কোটাক মাহিন্দ্রা ব্যাঙ্কের। পাশাপাশি, চেকটি থেকে জানা গিয়েছে যে, ওই ব্যক্তির বিশাখাপত্তনমে সংশ্লিষ্ট ব্যাঙ্কের একটি শাখায় অ্যাকাউন্ট রয়েছে।

আরও পড়ুন: ১ বা ২ দিন নয়, পুজোর আগের মাসে অর্ধেক দিনই খুলবে না ব্যাঙ্ক! বিপদে পড়ার আগে দেখুন তালিকা

এমতাবস্থায়, মন্দিরের সঙ্গে যুক্ত থাকা ব্যক্তিরা জানিয়েছেন, মন্দিরের কর্মীরা দান বাক্সে চেকটি দেখতে পেয়ে তা সেখানকার আধিকারিকের কাছে নিয়ে গেলে তিনি কর্মীদের সংশ্লিষ্ট ব্যাঙ্কের শাখায় যোগাযোগ করে চেকটি আদৌ সঠিক কি না তা জানতে বলেন। তারপরেই ব্যাঙ্কের আধিকারিকরা মন্দিরের সংস্থাকে জানিয়ে দেয়, যে ব্যক্তি চেকটি দিয়েছেন তাঁর অ্যাকাউন্টে মাত্র ১৭ টাকা রয়েছে।

আরও পড়ুন: রাজ্যে লাগু নতুন নিয়ম! এবার গাড়ি-বাইক চালানোর সময় এই কাজ করলেই মোটা টাকার চালান

কি ব্যবস্থা নেবেন মন্দিরের আধিকারিকরা: সূত্রের মতে, যদি ওই ভুয়ো চেক প্রদানকারীর উদ্দেশ্য মন্দির কর্তৃপক্ষের সাথে প্রতারণা করা হয়, সেক্ষেত্রে ব্যাঙ্ককে তাঁর বিরুদ্ধে চেক বাউন্সের মামলা করার অনুরোধ করা হতে পারে। এদিকে, ওই ব্যক্তির এহেন কাজের পরিপ্রেক্ষিতে নেটমাধ্যমে বিভিন্ন মন্তব্য করেছেন নেটিজেনরা। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, বিশাখাপত্তনমের সিংহাচলম পাহাড়ে অবস্থিত শ্রী বরাহলক্ষ্মী নরসিংহ স্বামী মন্দির অন্ধ্রপ্রদেশের অন্যতম বিখ্যাত মন্দির হিসেবে বিবেচিত হয়।