কিছুই জানতেননা ঐশ্বর্য? গোপনে জাহ্নবী কাপুরকে বিয়ে করেছিলেন অভিষেক বচ্চন, তোলপাড় নেটপাড়া

বাংলা হান্ট ডেস্ক : গত কয়েকমাস ধরেই অভিষেক বচ্চন (Abhishek Bachchan) এবং তাঁর স্ত্রী ঐশ্বর্য রায় বচ্চন (Aishwariya Rai Bachchan) সোশ্যাল মিডিয়ায়(Social Media) চর্চায় রয়েছেন। এনাদের সম্পর্ক আজকের নয়। প্রায় ১৭ বছর ধরে স্বামী-স্ত্রী বন্ধনে রয়েছেন। ২০০৭ সালে ২০ এপ্রিল তাঁরা সাত পাঁকে বাঁধা পড়েছিলেন। তাঁদের আলাপ হয়েছিল ‘ধাই অক্ষর প্রেম কী’ (Dhaai Akshar Prem Ke) ছবির শ্যুটিং চলার সময়। তবে সে সময় তাঁরা একে অপরের প্রেমে পড়েননি। কারণ ঐশ্বর্য রায়ের আগে সলমান খান (Salman Khan) ও বিবেক ওবেরয়ের (Vivek Oberoi) সঙ্গে নাম জড়িয়েছিল। এই সম্পর্কগুলি বেশি দিন স্থায়ী হয়নি। এরপরই তাঁরা দুজনে সাত পাঁকে বাঁধা পড়েন।

   

গত কয়েকমাস ধরেই তাঁদেরকে নিয়ে বিচ্ছেদের কথা শোনা যাচ্ছে। যদিও এই বিষয় নিয়ে তাঁরা কেউই কিছু বলেননি। তাঁরা নিজেদের কথা নিজেদের মধ্যেই রেখেছেন। কখনই সেরকমভাবে কারও কাছে মুখ খুলেননি। তাছাড়া তাঁরা এরকম কোনও সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কি না, সেটাও অস্পষ্ট। যদিও আপনারা জানেন দুই জুটির মধ্যে সম্পর্কের ঝড় প্রথম কিন্তু নয়। এর আগেও ঘটে ছিল গোপনে এক ঘটনা।

বিভিন্ন মিডিয়া সূত্রে খবর, অভিষেক বচ্চনের জীবনে নাকি এসেছিলেন জাহ্নবী কাপুর। সেইসময় গোপনেই নাকি বেড়েছিল তাঁদের সম্পর্ক। তা বলে এখানেই শেষ না, তাঁরা নাকি গোপনে বিয়েও করেছিলেন। তবে সেই বিয়ে প্রকাশ্যে আসতে দেননি অভিষেক বচ্চন। এই বিষয় নিয়ে আপনাদের যাতে ভুল না হয়, তাই বলে রাখি, জাহ্নবী কাপুর একজন মডেল। তিনি শ্রীদেবির কন্যা নন।

মডেল জাহ্নবী কাপুর (Janhvi Kapoor) দাবি করেছেন, ‘যে অভিষেক বচ্চনের সাথে তাঁর বিয়ে হয়েছিল। কিন্তু তিনি এটি মানতে নারাজ’। যেহেতু অভিষেক বচ্চন এই বিয়ে মানেনি, তাই মডেল জাহ্নবী আত্মহত্যারও চেষ্টা করেছিলেন। এ কথা এখানেই থেমে থাকেনি। এই বিষয় নিয়ে পুলিশ কেস পর্যন্তও হয়েছিল। ফলে জাহ্নবী কাপুর অনেক সমস্যার মুখে পড়েছিলেন। এই ঘটনার পর তাঁকে থানায় বন্দি করা হয়েছিল। এত সহজে তিনি জেল থেকে ছাড়া পাননি। মুচলেকা জমা দিতে হয়েছিল তাঁকে। যাতে তিনি এরপর কখনও এরকম কাজ না করেন।

abhishek 2

যদিও এই খবর মিডিয়ার শিরোনামে এসেছিলো। কিন্তু এ ঘটনা নিয়ে অভিষেক বাচ্চনকে তেমনিভাবে সমস্যায় পড়তে হয়নি। সেই সময় ঐশ্বর্য আর অভিষেক প্রেমে হাবু ডুবু খাচ্ছিলেন। তবে এই ঘটনা তাঁদের জীবনে তেমন ঝড় টেনে আনেনি। আর এই খবরটি সেরকমভাবে খুব বেশিদিন স্থায়ীও হয়নি।