“এটা ব্যবসা নয়”, প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করা স্টার্টআপকে বেমালুম “রিজেক্ট” করলেন আমন, অবাক করবে কারণ

বাংলা হান্ট ডেস্ক: রিয়েলিটি টেলিভিশন শো “শার্ক ট্যাঙ্ক ইন্ডিয়া”(Shark Tank India)-র তৃতীয় সিজন ইতিমধ্যেই সম্প্রচারিত হচ্ছে। যেখানে সাম্প্রতিক একটি এপিসোড উঠে এসেছে খবরের শিরোনামে। যেখানে “শার্ক”-রা প্রত্যেকেই একটি চিঠি পান। যেটির মাধ্যমে তাঁরা আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন। মূলত, “ডাক রুম” নামের একটি কোম্পানি এইভাবেই তাদের উপস্থাপিত করে। পাশাপাশি, ওই কোম্পানির তরফে তাদের বিজনেস আইডিয়াও “শার্ক”-দের কাছে তুলে ধরা হয়। মূলত, কোম্পানিটি তাদের প্রোডাক্টের মাধ্যমে লেখাকে প্রোমোট করে। সবথেকে উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, ইতিমধ্যেই “ডাক রুম” প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর (Narendra Modi) কাছ থেকেও প্রশংসা পেয়েছে।

   

এমতাবস্থায়, “শার্ক”-দের কাছে ৪ শতাংশ ইকুইটির বিনিময়ে ৩৬ লক্ষ টাকা চায় ওই সংস্থা। কিন্তু, একাধিক “শার্ক” এই স্টার্টআপকে ওই নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ দেওয়া থেকে বিরত থাকেন। পাশাপাশি, তাঁরা জানিয়ে দেন যে এটা কোনো ব্যবসাই নয়। বর্তমান প্রতিবেদনে এই প্রসঙ্গে বিস্তারিত তথ্য প্রস্তাবিত করা হল। উল্লেখ্য যে, পিচের শুরুতে, একজন পোস্টম্যান সাইকেলে করে চিঠি নিয়ে এসে শার্কদের দিয়েছিলেন। সেই চিঠিগুলি শার্কদের ঘনিষ্ঠ বন্ধুবান্ধব ও পরিবারের সদস্যরা লিখেছিলেন। যা পড়ে সবাই আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। এর পরে, “ডাক রুম” কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য শিবানী মেহতা এবং হারনেমত কৌর এসেছিলেন এবং তাঁদের বিজনেস আইডিয়া উপস্থাপিত করেন।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Daakroom (@daakroom)

প্রত্যেক শার্কই হারনেমত এবং শিবানীর আইডিয়ায় মুগ্ধ হন। পাশাপাশি, আমান গুপ্তা সহ সবাই তাঁদের প্রশংসাও করেছেন। তবে, সবাই বিনিয়োগের বিষয়ে তাদের ভিন্ন মতামত জানান। এই প্রসঙ্গে আমান “ডাক রুম”-এ বিনিয়োগ করতে অস্বীকার করে জানান, “এটা কোনো ব্যবসা নয়। প্রাচীনকালে এমনটা হতো। কিন্তু, আমার নিজেও লেখালেখির প্রতি অনুরাগ নেই। তাই আমি এতে ভ্যালু অ্যাড করতে সক্ষম হব না।”

আরও পড়ুন: ৪০ দিনে প্রতিদিন এত টাকা করে কমেছে দাম! এই কারণে সোনার দরে হচ্ছে ক্রমাগত পতন

পাশাপাশি, আরেক “শার্ক” পীযূষ বনসালও বিনিয়োগের পথে না হেঁটে ওই স্টার্টআপকে একটি স্টেশনারি ব্র্যান্ডে রূপান্তর করার পরামর্শ দেন। পীযূষ জানান “আপনাদের বাস্তবে সার্ভিস কি এবং ঠিক কিভাবে সার্ভিস প্রদান করা হবে তা আমি বুঝতে পারছি না।” পাশাপাশি, তাঁদের রেভিনিউ মডেল ঠিক কি? সেই বিষয়েও প্রশ্ন তোলেন পীযূষ। এদিকে, শার্ক রিতেশ “ডাক রুম”-এর প্রতিষ্ঠাতাদের ৬ শতাংশ মালিকানার জন্য ৩৬ লক্ষ টাকার অফার দেন। এছাড়াও, তিনি শর্ত রেখেছিলেন যে, যদি কোম্পানিটি প্রত্যাশিত আয় পূরণ করে তবে তাঁর মালিকানা কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হবে এবং এই প্রস্তাবে তাঁরা সম্মত হন।

আরও পড়ুন: ঢেলে সাজানো হচ্ছে লাক্ষাদ্বীপকে! বিমানবন্দরের সম্প্রসারণ থেকে নতুন রিসর্ট, পর্যটকদের জন্য দুর্দান্ত ব্যবস্থা

উল্লেখ্য যে, শার্ক ট্যাঙ্ক ইন্ডিয়ার তৃতীয় সিজন আগামী ২২ জানুয়ারি ২০২৪ থেকে শুরু হয়েছে। এদিকে, “ডাক রুম” এমন একটি স্টার্টআপ যেটি ক্যাম্পেন এবং ওয়ার্কশপের মাধ্যমে হাতে লেখাকে উৎসাহিত করে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও এটির প্রশংসা করেছেন।