টাইমলাইনবিনোদন

পশ্চিমের নকল করতে গিয়ে ভারতীয় সংষ্কৃতিকে ভুলে গিয়েছে, বলিউডের নিন্দায় সরব আশা পারেখ

বাংলাহান্ট ডেস্ক: সত্তরের দশকে বলিউডে যারা দাপটের সঙ্গে রাজত্ব করতেন তাদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন আশা পারেখ (Asha Parekh)। সে সময়কার সবথেকে জনপ্রিয় তথা সফল নায়িকাদের মধ্যে একজন ছিলেন তিনি। বিশেষত তাঁর নাচ সে সময়ে ইন্ডাস্ট্রির চর্চার বিষয় ছিল। সম্প্রতি সম্মানীয় দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কারে পুরস্কৃত করা হয় তাঁকে। এ প্রসঙ্গে আগেকার ও এখনকার সময়ের ইন্ডাস্ট্রির পার্থক্যের বিষয়েও মুখ খোলেন বর্ষীয়ান অভিনেত্রী।

অভিনয়ের পাশাপাশি নাচেও অত্যন্ত পারদর্শী ছিলেন আশা পারেখ। বলিউডি সিনেমা মানেই নাচে, গানে ভরপুর। এ বিষয়ে আগেকার থেকে এখনকারের বলিউডের মধ্যে পার্থক্য তেমন বেশি নেই। কিন্তু আশা বলেন, এখনকার অভিনেত্রীদের নাচ দেখলে তাঁর ভাল লাগে না। আধুনিক ছবির গান এবং দৃশ্যায়ন কোনোটাই ভাল লাগে না বলে মন্তব্য করেন আশা পারেখ।

এ বিষয়ে সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে বর্তমানের ইন্ডাস্ট্রির খারাপ দিকটা নিয়ে কথা বলেন ‘তিসরি মঞ্জিল’ অভিনেত্রী। তিনি বলেন, নিজের সংষ্কৃতিটাকেই ভুলতে বসেছে বলিউড। পাশ্চাত্য সংষ্কৃতিকে দেখে নকল করার চেষ্টা করছে হিন্দি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি। আর এই করতে গিয়ে নিজেদের যে নৃত্যশৈলী সেটাকেই ভুলে যাচ্ছে বলিউড, মন্তব্য অভিনেত্রীর।

তিনি বলেন, ‘আমরা পশ্চিমের দেশগুলোকে দেখে নকল করার চেষ্টা করি। কিন্তু বর্তমান সময়ে যে নাচ আমরা সিনেমায় দেখছি তা আমাদের সংষ্কৃতি নয়। মাঝে মাঝে মনে হয় আমরা এরোবিকস করছি, নাচ নয়। এসব দেখলে মন খারাপ লাগে বলেও মন্তব্য করেন আশা পারেখ। রিমিক্স গানগুলির বিরুদ্ধেও ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন তিনি।

পরিচালক সঞ্জয় লীলা বনশালিকে অবশ্য প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়েছেন বর্ষীয়ান অভিনেত্রী। কারণ একমাত্র তিনিই নাকি ভারতীয় সংষ্কৃতিকে, নৃত্যশৈলীকে নিজের ছবিতে ধরে রেখেছেন। আশার মতে, ভারতীয় সংষ্কৃতির প্রতি ভালবাসাটা স্পষ্ট বোঝা যায় বনশালির ছবিতে।

Related Articles