টাইমলাইনখেলাক্রিকেট

রাজনীতির পাশাপাশি CAB-র সাথে মিলে প্রশিক্ষক হিসেবে অবদান রাখতে প্রস্তুত BJP বিধায়ক অশোক দিন্দা

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্ক: কিছুদিন আগেই লক্ষ্মীরতন শুক্লা বাংলা ক্রিকেট দলের কোচ হিসাবে নিযুক্ত হয়েছেন। অনেক বাংলা ক্রিকেটের অনুরাগীই সেই ঘটনায় খুশি হয়েছিলেন। তার সাথে সহকারী হিসাবে থাকবেন বাংলারই প্রাক্তন স্পিনার এবং লক্ষ্মীর একসময়ের সতীর্থ সৌরাশিস লাহিড়ী। দুজনে একসময় মাঠে বাংলাকে নিজেদের পারফরম্যান্স দিয়ে অনেক ম্যাচ জিতিয়েছিলেন। এখন বাংলা দলকে পরিচালনার গুরুদায়িত্ব তাদের ওপর। সেই সঙ্গে অভিমন্যু ঈশ্বরণদের ব্যাটিং পরামর্শদাতা হিসাবে নিযুক্ত করা হয়েছে ডব্লিউ ভি রমনকে।

এবার লক্ষ্মীরতনের পর বাংলার কোচিংয়ের কোনও একটি সহায়ক পদে দেখা যেতে পারে আর এক প্রাক্তন তারকা বঙ্গ ক্রিকেটারকে। দীর্ঘদিন বাংলার বোলিংকে একার কাঁধে টানা অশোক দিন্দার বাংলার কোচিংয়ের আসার সম্ভাবনা প্রবল। ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অফ বেঙ্গলের কর্তাদের নিজের এই ইচ্ছের কথা জানিয়েছেন ভারতের হয়ে সীমিত ওভারের ক্রিকেট খেলা এই ক্রিকেটার।

তবে ক্রিকেটার হিসেবে বাংলার সঙ্গে তার সম্পর্ক ঠিক ভালোভাবে শেষ হয়েছিল এমনটা বলা যায় না। ড্রেসিংরুমে বেশকিছু বিতরকের পর অশোক দিন্দাকে রঞ্জি দলে নেওয়ার থেকে অস্বীকার করা হয়। তারপর এক সময় খেলা ছাড়ার পর বিজেপিতে যোগদান করেছিলেন দিন্দা। সেখানেও অত্যন্ত কঠিন সংগ্রাম করে তিনি ময়না থেকে বিজেপির টিকিটে যেতে বিধায়কে পরিণত হয়েছিলেন।

সিএবি কর্তারা প্রথমে তাকে নেওয়ার ব্যাপারে উৎসাহী ছিলেন না। কিন্তু এখন শোনা যাচ্ছে যে তাদের মত কিছুটা বদলেছে। বৃন্দা বরাবর মুখে সেটাই বলেন যেটা তার মনে আছে, এই স্বভাবের জন্যই নিন্দুকরা তাকে ঠোঁটকাটা বলে থাকে। রাজনীতিতে সময় দিয়ে তিনি বাংলার জন্য কতটা সময় বার করতে পারবেন সেই নিয়েও অনেকের মনে প্রশ্ন ছিল। সেইজন্যই সিএবি তার কথা প্রথমে ভাবছিল না। তো শোনা যাচ্ছে যে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় এর পরামর্শ অনুযায়ী এখন অশোক দিন্দা কে কোন একটি নির্দিষ্ট দায়িত্ব দেওয়ার ব্যাপারে আগ্রহী হয়েছেন সিএবি কর্তারা। ঠিক কি দায়িত্ব তাকে দেওয়া হবে তা এখনও পরিষ্কার নয়। আবে আশঙ্কা করা হচ্ছে যে ভবিষ্যতে তারকা তৈরি করার কাজেই মূলত দিন্দাকে ব্যবহার করা হতে পারে।

Related Articles