৬ টাকার একটি ডিম বিক্রি হল ২.৬ লাখে! এত দাম কেন? জানলে হুঁশ উড়বে

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক: মাঝেমধ্যেই এমন কিছু ঘটনার প্রসঙ্গ খবরের শিরোনামে উঠে আসে যেগুলি রীতিমতো অবাক করে দেয় প্রত্যেককেই। ঠিক সেইরকমই এক বিষয় এবার উঠে এসেছে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে। যেখানে একটি ডিমের দামের বিষয়ে চমকে উঠেছেন সবাই। হ্যাঁ, প্রথমে বিষয়টি শুনে কিছুটা অদ্ভুত মনে হলেও এটা কিন্তু একদমই সত্যি। মূলত, ওই ডিমটির দাম ছাড়িয়ে গিয়েছে বহুমূল্যের অলংকারকেও। এমতাবস্থায়, যখন সেটি নিলাম করা হয়েছিল, তখন তার চূড়ান্ত বিড ২.২৬ লক্ষ টাকায় পৌঁছেছিল। এই অনন্য ঘটনাটি উত্তর কাশ্মীরের (Jammu And Kashmir) একটি এলাকা থেকে সামনে এসেছে। সেখানে একটি মসজিদ নির্মাণের জন্য অনুদান সংগ্রহ করা হচ্ছিল।

মসজিদ নির্মাণের জন্য অনুদান: প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, উত্তর কাশ্মীরের বারামুলা জেলার সোপোরের মালপোরা ওয়ারপোরা এলাকায় একটি মসজিদ তৈরি করা হচ্ছে। সেখানে কমিটি মসজিদ নির্মাণে সাহায্য করার জন্য অনুদান নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর জন্য মসজিদ কমিটি বাড়ি বাড়ি গিয়ে অনুদান সংগ্রহের কাজ করছে।

Because of this, an egg worth Rs 6 was sold for Rs 2.6 lakh.

এমন পরিস্থিতিতে স্থানীয় বাসিন্দারা তাঁদের সামর্থ্য অনুযায়ী টাকা-পয়সা, বাসন-পত্র, দান করছেন। সেই সময়ে একজন দরিদ্র মহিলা কমিটির সদস্যের কাছে এসে একটি ডিম দান করে জানান, “আমার তরফে এটা গ্রহণ করুন।” এদিকে, তাঁর এই পদক্ষেপকে উপস্থিত সকলে প্রশংসা করেছেন।

আরও পড়ুন: অশুভ শক্তির বিনাসের আশায় দেবী অন্নপূর্ণার আরাধনা! উত্তর ২৪ পরগনায় মহাসমারোহে হচ্ছে পুজো

প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ওই মহিলা অত্যন্ত দরিদ্র এবং একটি ছোট্ট জরাজীর্ণ বাড়িতে ছেলেকে নিয়ে বসবাস করেন। তাই তাঁর পদক্ষেপে মুগ্ধ হয়ে মসজিদ কমিটি একটি সিদ্ধান্ত নেয়। যেটি লাভজনক প্রমাণিত হয়। তারা ওই ডিমটি নিলামে তোলে। এরপর যা ঘটল, তাতে অবাক গোটা জম্মু-কাশ্মীর। একটা সময়ে ওই ডিমের দাম পৌঁছে যায় ২,২৬,৬৫০ টাকায়।

আরও পড়ুন: ইরান-ইজরায়েল সংঘর্ষের এফেক্ট! ধনকুবেররা হারালেন ২৩,৩৯,৯৭,৮২,০০,০০০ টাকা, কার বেশি ক্ষতি?

৩ দিন ধরে হয় নিলাম: জানা গিয়েছে যে কমিটি নিলামের জন্য ৩ দিনের সময় বেঁধে দেয়। যেটি থেকে তারা সুবিধা পেয়েছে। প্রথম নিলাম ১০ হাজার টাকা থেকে শুরু হয়েছিল এবং প্রথম দিনেই এই ডিমটির জন্য কমিটি ১.৪৮ লক্ষ টাকার অনুদান পায়। সবাই এটি ক্রয় করতে থাকে এবং পরে ওই ডিম ফেরত দিয়ে অন্য কাউকে আরও অর্থ প্রদানের পথ তৈরি করে। ৩ দিন পর এক যুবক ঘটনাস্থলে এসে ৭০ হাজার টাকায় ডিমটি কিনে নেন। এই ডিমটি ৬০ জনেরও বেশি জন কিনে পরে দান করেছিলেন। শেষ পর্যন্ত, ডিমটি ২,২৬,৬৫০ টাকা তুলেছে। যার মধ্যে ওই যুবকের দেওয়া ৭০,০০০ টাকার চূড়ান্ত বিক্রয় মূল্য অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর