ফের ধাক্কা খেল BJP! নাম চূড়ান্ত হওয়ার পরেও ভোটে লড়বেন না বলে জানালেন দুই প্রার্থী

বাংলা হান্ট ডেস্ক : ভোটের মুখে ফের তাল কাটল। মোদীর (Narendra Modi) গড় গুজরাটে একটার পর একটা ধাক্কা খাচ্ছে বিজেপি (Bhartiya Janta Party)। সম্প্রতি সবরকাঁথা লোকসভা আসনের বিজেপি প্রার্থী ভিকাজি ঠাকুর নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে অস্বীকার করেছেন। অন্যদিকে ভাদোদরার বিজেপি সাংসদ রঞ্জনবেন ধনঞ্জয় ভাটও নিজের নাম তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

   

সম্প্রতি বিজেপি সাংসদ রঞ্জন ভাট নিজের এক্স হ্যান্ডেলে ঘোষণা করেছেন যে, তিনি ব্যক্তিগত কারণে আসন্ন নির্বাচনে তার নাম প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এখানে বলে রাখা ভালো, গত দুইবারের ভদোদরার বিজেপির সাংসদ হলেন রঞ্জন ভাট। এবারও তার নাম চূড়ান্ত করেছিল বিজেপি। তবে তার আগেই ছন্দ কাটল।

তবে এখানেই শেষ নয়, রঞ্জনবেন ধনঞ্জয় ভাটের পাশাপাশি সবরকাঁথা লোকসভা আসনের বিজেপি প্রার্থী ভিকাজি ঠাকুরও জানিয়েছেন যে, তিনি নির্বাচন লড়তে চাননা। নিজের ইনস্টাগ্রামে একটি পোস্ট করে তিনি লিখেছেন যে, তিনি আসন্ন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চাননা। তিনি লিখেছেন, ‘আমি, ভিকাজি ঠাকুর, ব্যক্তিগত কারণে ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চাই না।’

আরও পড়ুন: ‘কেজরিবালের মুখোশ খুলব!’ অরবিন্দের পর্দা ফাঁস করে রাজসাক্ষী হওয়ার দাবি সুকেশের

এখানে বলে রাখা ভালো, ভাদোদরায় রঞ্জন ভাটের নাম চূড়ান্ত হওয়ার পর থেকেই তার বিরোধিতা করে এলাকায় ব্যানার-পোস্টার লাগানো হয়েছিল। ব্যানারে লেখা ছিল, ‘ক্ষমতার নেশায় মত্ত বিজেপি কি কোনও যোগ্য ব্যক্তিকে প্রার্থী করবে? ভাদোদরার মানুষ অসহায় কারণ তারা মোদীকে ভালোবাসে।’ এছাড়াও পোস্টারে লেখা ছিল, ‘ভদোদরার উন্নয়ন কোথায় গেল? কার ঘরে বা উঠানে? জনগণ তদন্ত চায়।’

আরও পড়ুন : Exclusive! বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন হর্ষবর্ধন শৃঙ্গলা, দার্জিলিং থেকে দাঁড়াতে পারেন প্রাক্তন বিদেশ সচিব

Bhartiya Janta Party

এছাড়া একটি ব্যানারে লেখা ছিল, ‘মোদী আপনার বিরুদ্ধে নন, রঞ্জন আপনার জন্য ভালো নয়। বিজেপি কি কোনও যোগ্য ব্যক্তিকে প্রার্থী করবে?’ এছাড়াও কিছু স্থানীয় নেতাও ভাটের মনোনয়ন নিয়ে অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেছিলেন। উল্লেখ্য, ২০১৪ সালে মোদী এই আসন থেকে পদত্যাগ করার পর উপনির্বাচনে জয় লাভ করেছিলেন ভাট। এরপর ২০১৯ সালের নির্বাচনেও জয়ী হন তিনি।

Moumita Mondal
Moumita Mondal

মৌমিতা মণ্ডল, গ্র্যাজুয়েশনের পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। বিগত ৩ বছরেরও বেশি সময় ধরে লেখালেখির সাথে যুক্ত। প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর