সাইকেল চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়েছিলেন হাতেনাতে! পিটিয়ে চপ-মুড়ি খাওয়াল এলাকাবাসী

বাংলাহান্ট ডেস্ক: চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়ে গণধোলাইয়ের দৃশ্য খুবই সাধারণ ব্যাপার। অনেক সময়েই আমরা রাস্তাঘাটে এমন দৃশ্য দেখতে পাই। মোবাইল কিংবা টাকা চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়ে মানুষের হাতে বেধরক মারধোর খেতে দেখা যায় চোরকে। তারপর অধিকাংশ সময়েই তাকে আর পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয় না। শহর থেকে গ্রামে এই দৃশ্য প্রায়ই দেখা যায়। কিন্তু রামপুরহাটবাসী (Rampurhat) এক চোরের সঙ্গে যা করলেন তা নজিরবিহীন।

   

গতকাল রামপুরহাটে সাইকেল চুরি করতে গিয়ে ধরা পরে এক চোর। হাতেনাতে ধরা পড়ার পর স্বভাবতই তার উপর চটে যায় এলাকাবাসী। তারপর তাকে বেদম প্রহার করা হয়। কিন্তু তারপরেই ওই চোরের উপর দয়া হয় সকলের। গরিব মানুষ পেটের দায়ে এই কাজ করে ফেলেছে মনে করে নজিরবিহীনভাবে তার খাতির করতে শুরু করে তারা।

bicycle chor rampurhat

ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের (Birbhum) রামপুরহাটের সাত নম্বর ওয়ার্ডে। সেখানে সাইকেল চুরি করতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়ে এক চোর। সকালবেলায় সবার সম্মুখে এই কাজ করতে গিয়ে ধরা পড়ে যায় যে। এরপরেই তার উপর চড়াও হয় এলাকাবাসী। রাস্তায় ফেলে বেধরক মারধর করা হয় তাকে। রীতিমতো রাস্তায় গণধোলাই দেওয়া হয়। এরপরেই তার উপর দয়া আসে কিছু কিছু স্থানীয়দের। 

তাই তারা ওই চোরকে নিয়ে যায় সামনেরই একটি দোকানে। সেখানে নিয়ে গিয়ে তাকে পেট ভরে খেতে দেওয়া হয়। চপ ও ঘুগনি সহযোগে মুড়ি খাওয়ানো হয় ওই চোরকে। তারপরেই এলাকাবাসীর মধ্যে আলোচনা শুরু হয়, এ বার কী করা হবে ওই চোরকে নিয়ে। এরপর কিছু জন পরামর্শ দেন, থানায় খবর দেওয়া হোক। সেই মতো রামপুরহাট থানায় খবর দেওয়া হয়। 

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় রামপুরহাট থানার পুলিশ। তারপরেই সাইকেল চুরির দায়ে অভিযুক্ত ওই ব্যক্তিতে আটক করে থানায় নিয়ে যায় তারা। এমন নজিরবিহীন ঘটনা আমাদের সমাজে সচরাচর দেখা যায় না। চোরকে পেলে সাধারণত গণধোলাই দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়, নয়তো পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। তবে রামপুরহাটে যা ঘটল তা এক কথায় নজিরবিহীন। বৃহস্পতিবার সকালে এক অদ্ভুত ঘটনার সাক্ষী রইলেন রামপুরহাটবাসী।