সরস্বতী পুজো, ভাইফোঁটায় খোলা স্কুল, ইদে বন্ধ ৬ দিন! রাজ্যের ছুটির তালিকা দেখে ইসলামিক স্টেট আখ্যা বিজেপির

বাংলা হান্ট ডেস্ক: ২০২৪ সালের ছুটির তালিকা প্রকাশ করেছে বিহার সরকার (Bihar Sarkar)। আর সেখানেই শুরু হয়েছে বিতর্ক! হিন্দু উৎসবের ছুটির (Holiday) সংখ্যা কমিয়ে মুসলিম উৎসবে ছুটির সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে ওই রাজ্যে। আর এই নিয়ে বিজেপির তোপের মুখে নীতীশ কুমার (Nitish Kumar)।

   

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অশ্বিনী বিহার সরকারকে নিশানা করে বলেন, সরকারের হিন্দু বিরোধী রূপ সামনে চলে এসেছে। তারা ভোট ব্যাঙ্কের জন্য সনাতন ধর্মকেও ঘৃণা করেছে। এক্স হ্যান্ডেলে তিনি লিখেছেন, ‘আবারও চাচা-ভাতিজা সরকারের হিন্দু বিরোধী চেহারা সামনে এল। একদিকে স্কুলগুলিতে মুসলিম উৎসবে ছুটি বাড়ানো হচ্ছে, অন্যদিকে হিন্দু উৎসবের ছুটি কাটছাঁট করা হচ্ছে। ভোট ব্যাঙ্কের জন্য যে সরকার সনাতন ধর্মকে ঘৃণা করে এমন সরকার আমাদের কাছে লজ্জার।’

বিহারের শিক্ষা দপ্তরের তরফে সোমবার ২০২৪ সালের ছুটির ক্যালেন্ডার প্রকাশ করা হয়েছে। সেই ক্যালেন্ডার ২২০ দিন শিক্ষাদানের দিবস উল্লেখ করা হয়েছে। তবে সেই ছুটির তালিকায় বড়সড় পরিবর্তন করা হয়েছে। গ্রীষ্মকালীন ছুটির সংখ্যা বাড়িয়ে করা হয়েছে ৩০ দিন।

অন্যদিকে, মকর সংক্রান্তি, রাখি বন্ধন, সরস্বতী পুজো, জন্মাষ্টমী, রামনবমী, ভাইফোঁটা এবং শিবরাত্রির ছুটি ওই ছুটির তালিকায় নেই। অর্থাৎ, হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের উৎসবের দিনে ছুটি দেয়নি সরকার। অন্যদিকে, ইদ-উল-ফেতর, বকরি ইদের ছুটি বাড়িয়ে তিনদিন করা হয়েছে।

এই নিয়ে কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী গিরিরাজ সিং বলেন বিহার সরকারকে ‘ইসলামিক রিপাবলিক অফ বিহার’ বলে কটাক্ষ করেন। তিনি বলেন, ‘নীতীশ-লালু সরকার মুসলিম উৎসবের ছুটি বাড়িয়েছে। আর ১৫ থেকে হিন্দু উৎসবের ছুটি কমিয়েছে।’