টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

হয়ে গেল সবথেকে বড় ভবিষ্যদ্বাণী! তৃণমূলের প্রধানমন্ত্রী ক্যান্ডিডেট হবেন বাবুল সুপ্রিয়

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ বিজেপি (Bharatiya Janata party) ছেড়ে তৃণমূলে (All India Trinamool Congress) গিয়ে প্রথম একাদশে খেলতে চেয়েছিলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা আসানসোলের প্রাক্তন বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয় (Babul Supriyo)। কিন্তু এখনো পর্যন্ত ওনার সেই স্বপ্ন পূরণ হয়নি। কারণ, গায়ক বাবুলকে তৃণমূল এখনো পর্যন্ত না কোনও পদ দিয়েছে, আর না নির্বাচনের প্রার্থী করেছে বা রাজ্যসভার সাংসদ হিসেবে মনোনীত করেছে।

বাবুল বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যাওয়ার পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাঙ্গ বিদ্রূপের শিকার হচ্ছেন। বিশেষ করে ওনার পুরনো দলের প্রাক্তন সহকর্মীরা বারবার ওনাকে নিয়ে ট্রোল করছেন। আর সেই সহকর্মীদের সবথেকে বেশি বাবুল সুপ্রিয়কে ট্রোল করেছেন অনুপম হাজরা। বীরভূমের প্রাক্তন এই সাংসদ বারবার বাবুল সুপ্রিয়কে একের পর এক খোঁচা দিয়ে গিয়েছেন। আর এবারও ঠিক তেমনই হল।

তৃণমূলের তরফ থেকে কলকাতা পুরসভার প্রার্থী ঘোষণার পর অনুপম হাজরা বাবুল সুপ্রিয়র নাম না নিয়েই ওনাকে খোঁচা দেন। উল্লেখ্য, কলকাতা পুরসভায় বাবুল সুপ্রিয় প্রার্থী হবেন বলে জল্পনা ছড়িয়েছিল। পাশাপাশি ওনাকে মেয়র করা হতে পারেও বলে গুঞ্জন রটেছিল। কিন্তু, তৃণমূলের প্রার্থী তালিকায় বাবুল সুপ্রিয়কে জায়গা দেওয়া হয়নি। আর এরপরই অনুপমবাবু একটি পোস্ট করে বাবুল সুপ্রিয়কে খোঁচা দেন।

অনুপমবাবু নিজের ফেসবুক পোস্টে লেখেন, ‘প্লেয়িং ১১-এ খেলতে চাওয়া ছেলেটা আজও মাঠের বাইরে। ভাবলাম রাজ্যসভায় পাঠানো হবে, হল না। ভাবলাম উপনির্বাচনের টিকিট দিয়ে মন্ত্রী করা হবে, টিকিট দিল না। ভাবলাম কর্পোরেশনের টিকিট দিয়ে মেয়র বানানো হবে, সেটাও করল না। তারমানে নিশ্চই এক্কেবারে তৃণমূলের প্রধানমন্ত্রী ক্যান্ডিডেট।” অনুপম হাজরার এই পোস্ট যে বাবুল সুপ্রিয়কে উল্লেখ করেই করা, সেটা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। কারণ অনুপমবাবু এর আগেও রাজ্যসভার টিকিট না পাওয়ার জন্য বাবুল সুপ্রিয়কে কটাক্ষ করেছিলেন। পাশাপাশি বাবুল সুপ্রিয় নিজেই বলেছিলেন যে, তিনি প্লেয়িং ১১-এ খেলতে চান।”

Related Articles

Back to top button