‘সাংসদ পদ খারিজ করলেই হবেনা, ওকে জেলে…’, ঘুষ কাণ্ড নিয়ে মহুয়ার বিরুদ্ধে বিষোদগার শুভেন্দুর

বাংলা হান্ট ডেস্ক : ‘ঘুষের বিনিময়ে প্রশ্ন’ মামলায় তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি। টাকার বিনিময়ে প্রশ্ন কাণ্ডে এবার সিবিআই তদন্তের মুখে তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র (Mahua Moitra)। লোকপালের নির্দেশ মেনে গত শনিবার থেকেই কৃষ্ণনগরের তৃণমূল সাংসদের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছে CBI। তারপর থেকেই বিরোধী দলের নেতা মন্ত্রীদের কটাক্ষের শিকার হয়ে চলেছেন তিনি।

   

pti11 10 2023 000152b 0 1700914626053 1700914650538

শুভেন্দুর তীব্র কটাক্ষ 

সম্প্রতিই তৃণমূল সাংসদকে তীব্র কটাক্ষ তার প্রাক্তন প্রেমিক তথা সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী জয় অনন্ত দেহদ্রাইয়ের। রোলেক্স কুমারী বলে খোঁচা দেন তিনি‌‌। তবে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু (Suvendu Adhikari) কেবল খোঁচাতেই থেমে থাকলেননা। পূর্ব মেদিনীপুরের ভূমিপুত্রের দাবি, কেবল সাংসদপদ খারিজ করলে হবে না। মহুয়া যাতে আগামী ৫টা ভোটে দাঁড়াতে না পারে তার ব্যবস্থাও করতে হবে বলে দাবি করেছেন তিনি।

মহুয়ার জেল হওয়া উচিত…দাবি শুভেন্দুর 

এইদিন শুভেন্দু বলেন, ‘দেশবিরোধী কাজের জন্য মহুয়া মৈত্রর শুধু সাংসদপদ খারিজ করলেই চলবে না। আগামী ৫টা ভোটে যাতে দাঁড়াতে না পারে তার ব্যবস্থা হওয়া উচিত এবং জেলে যাওয়া উচিত।’ ওদিকে দিলীপ ঘোষও ছেড়ে কথা বলেননি। মহুয়ার বিরুদ্ধে কথা বলতে গিয়ে অবমাননাকর মন্তব্য করার অভিযোগ উঠেছে বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে।

আরও পড়ুন : শাহ-সভার প্রস্তুতি তুঙ্গে! ১৪-র রেকর্ড ভাঙাই লক্ষ্য, ১০ টি বাক্সে রয়েছে বিশেষ চমক

দিলীপ ঘোষের তীব্র কটাক্ষ 

এক পথসভায় দিলীপ ঘোষ চাঁচাছোলা ভাষায় বলেন, ‘টাকা নিয়ে এমপি অ্যাপের পাসওয়ার্ড দিয়েছে একটা কোম্পানিকে। সেই কোম্পানি দুবাইয়ে বসে আদানির বিরুদ্ধে প্রশ্ন করছে। কারণ একই রকম ব্যবসা। আর তার বিনিময়ে টাকা নিয়েছে, গিফট নিয়েছে, লিপিস্টিক, স্নো পাউডার নিয়েছে। চকচকে চেহারা। গোরে গোরে মুখড়ে পে কালি কালি চশমা’।

আরও পড়ুন : ‘বিয়ে মানে সারাজীবনের শাস্তি…’, টলিপাড়ায় আবার ভাঙন? ইঙ্গিতপূর্ণ পোস্ট নীল-তৃণার

mahua moitra new

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বিগত মাস কয়েক ধরেই মহুয়া মৈত্রর ‘ঘুষের বিনিময়ে প্রশ্ন’ কাণ্ড রয়েছে চর্চায়। বিজেপি সাংসদ নিশিকান্ত দুবে এই বিষয়ে মহুয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন লোকপালের কাছে। তারপর সেই জল গড়িয়ছে বহুদূর। কৃষ্ণনগরের তৃণমূল সাংসদের বিরুদ্ধে সিবিআই তদন্তের বরাত দিয়েছেন লোকপাল। সেই সুপারিশের জেরেই গত শনিবার থেকে শুরু হয়েছে CBI তদন্ত।