আসল বাবা নয়, বার্থ সার্টিফিকেটে থাকুক সৎ বাবার নাম! যুগান্তকারী রায় কলকাতা দিল হাই কোর্ট

   

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ শিশুর বার্থ সার্টিফিকেটে থাকতে পারে সৎ বাবার নাম, রায় দিল কলকাতা হাই কোর্ট (Calcutta High Court)। সম্প্রতি এক শিশুর মা হাই কোর্টে আবেদন করেছিলেন যাতে তাঁর শিশুর জন্ম সংক্রান্ত শংসাপত্রে বাবার পদবীর বদলে সৎ বাবার (Step Father) পদবী ব্যবহার করা যায়। আদালতে জানানো হয়েছিল, সংশ্লিষ্ট মহিলার প্রথম স্বামী তাঁর শিশুর পিতা। তবে পরবর্তীকালে তাঁদের বিবাহবিচ্ছেদ হয়ে যায়।

দ্বিতীয় স্বামীর হাত ধরে পুরনো সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসেন সেই মহিলা। সৎ পিতাকেই বাবা হিসেবে চিনতে শেখে তাঁর সন্তান। তবে শিশুটির বার্থ সার্টিফিকেটে (Birth Certificate) ব্যবহার করা হয়েছিল আসল বাবার (Biological Father) পদবী। এবার এই নিয়ে বড় রায় দিল কলকাতা হাই কোর্ট। লাইভ ল অনুসারে জানা গিয়েছে এই খবর। কলকাতা হাই কোর্টের বিচারপতি অমৃতা সিনহা কলকাতা মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনকে (KMC) সংশ্লিষ্ট শিশুর জন্ম শংসাপত্র পুনরায় ইস্যু করার নির্দেশ দিয়েছেন।

বিচারপতি জানান, ব্যক্তিগত বিষয়গুলি নিয়ে কারোর হাইপার টেকনিক্যাল হওয়ার প্রয়োজন নেই। পরিস্থিতি বদলেছে, তাই এবার ওই শিশুর জন্ম শংসাপত্র বদল করা দরকার। প্রয়োজনীয় বদল যদি না করা হয় তাহলে ভবিষ্যতে ওই শিশু এবং তাঁর পরিবারের সদস্যরা অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে পারে। আর প্রত্যেক নাগরিকের সম্মান এবং মর্যাদার সঙ্গে বাঁচার অধিকার রয়েছে।

আরও পড়ুনঃ তৃণমূলের উপর BJP-র ‘হামলা’! জখম বহু, লোকসভার আগে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল নন্দীগ্রাম

আসলে আবেদনকারী সেই মহিলা নিজের শিশুর জন্ম শংসাপত্রে বদল আনতে চেয়েছিলেন। সেখানে সংযুক্ত করতে চেয়েছিলেন নিজের বর্তমান স্বামীর নাম। তবে প্রাথমিক পুরসভা বিষয়টি মানতে চায়নি বলে খবর। পুরসভার তরফ থেকে বলা হয়েছিল, বার্থ সার্টিফিকেটে একবার যদি শিশুর নাম এবং বাবার নাম যুক্ত হয়ে যায় তাহলে বাবার নাম আর বদল করা যায় না। সেই কারণে তিনি আদালতের দ্বারস্থ হন।

amrita sinha calcutta high court

এদিকে আদালত জানতে পারে, ওই শিশুটি বর্তমানে তাঁর মা এবং সৎ বাবার সঙ্গে থাকে। সৎ বাবাকেই নিজের বাবা হিসেবে গ্রহণ করেছে সে। অন্যদিকে সৎ বাবাও শিশুটিকে নিজের সন্তান হিসেবে মেনে নিয়েছে। তাই শিশুর বার্থ সার্টিফিকেটে বাবার নাম বদলের জন্য আবেদন করে শিশুটির মা। এবার সেখানেই মান্যতা দিলেন কলকাতা হাই কোর্টের বিচারপতি অমৃতা সিনহা।

Sneha Paul
Sneha Paul

স্নেহা পাল, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তরের পর সাংবাদিকতা শুরু। বিগত প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর