‘কয়েকদিন অপেক্ষা করুন, আকাশ ভেঙে পড়বে না’, ক্ষুব্ধ বিচারপতি সিনহা, এল বিরাট নির্দেশ

   

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ ভোটের মাঝে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর ভাড়াবাড়িতে হানা দিয়ে হাইকোর্টে (Calcutta High Court) তুমুল ভর্ৎসনার মুখে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ। ভোটের মাঝে আদালতে একের পর এক ধাক্কা খাচ্ছে রাজ্য (West Bengal Government)। এবার শুভেন্দু অধিকারীর করা মামলাতেও মুখ পুড়ল রাজ্যের। শুক্রবার হাইকোর্টের বিচারপতি অমৃতা সিনহার নির্দেশ, আগামী ১৭ জুন পর্যন্ত শুভেন্দুর বিরুদ্ধে পুলিশ কোনও ব্যবস্থা নিতে পারবে না।

প্রসঙ্গত, নিজের কোলাঘাটের ভাড়াবাড়িতে পুলিশি হানার বিরুদ্ধে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন শুভেন্দু। এদিন সেই মামলাতেই বিরাট নির্দেশ দিল আদালত। ভোটের মাঝেই গত মঙ্গলবার রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর (Suvendu Adhikari) কোলাঘাটের ভাড়াবাড়িতে হানা দিয়েছিল পুলিশ। যা নিয়ে রাজ্য-রাজনীতিতে শোরগোল পড়ে যায়।

শুভেন্দুর অভিযোগ ছিল কোনও তল্লাশি পরোয়ানা না থাকা সত্ত্বেও তার ভাড়াবাড়িতে তল্লাশি চালিয়েছে পুলিশ। ঘটনার তীব্র নিন্দা করে আদালতের দ্বারস্থও হয়েছিলেন শুভেন্দু। এদিন সেই মামলায় কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অমৃতা সিনহার নির্দেশ, আপাতত ১০ জুন পর্যন্ত কোলাঘাটে বিরোধী দলনেতার অফিস বা বাড়িতে তল্লাশি করতে পারবে না পুলিশ।

আদালতে রাজ্যের তরফে আইনজীবী জানান, ওই বাড়িটিতে যে শুভেন্দু অধিকারী থাকেন বা তার নামে ভাড়া দেওয়া সেই বিষয়ে অবগত ছিল না পুলিশ। পাশাপাশি যে অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ ওই বাড়িতে তল্লাশি চালিয়েছিল সেই মামলায় শুভেন্দু অভিযুক্ত বা সাক্ষী নন বলেও আদালতে আদালতে স্পষ্ট কথায় জানায় রাজ্য। পাল্টা শুভেন্দুর আইনজীবীর সওয়াল, পুলিশের কাছে কোনও তল্লাশি পরোয়ানা না থাকা সত্ত্বেও মঙ্গলবার তার মক্কেলের অফিস এবং ভাড়াবাড়িতে তল্লাশি চালিয়েছিল পুলিশ।

নির্বাচনের সময় শুভেন্দুকে উত্ত্যক্ত করতেই পুলিশ এই পদক্ষেপ নেয় বলে অভিযোগ তোলেন আইনজীবী। পাল্টা রাজ্যের দাবি, পুলিশের কাছে থাকা নথি অনুযায়ী, ওই বাড়ির মালিক সুরজিৎ দাস নামে এক ব্যক্তি। ওখানে শুভেন্দু অধিকারী থাকেন বলে কোনো খবর ছিল না তাদের কাছে। এদিন বিচারপতি সিনহার এজলাসে মামলার শুনানিতে রাজ্য জানায়, গত মঙ্গলবার বিকাল ৫টা নাগাদ পুলিশ অভিযোগ পায় যে, ওই বাড়িতে প্রচুর পরিমাণ অস্ত্র মজুত করে লুকিয়ে রাখা হয়েছে। খবর পেয়েই পুলিশ তল্লাশি অভিযান শুরু করে। ফ্লাইং স্কোয়াডকেও খবর দেওয়া হয়। সাড়ে ছ’টা নাগাদ তল্লাশি অভিযান শুরু হয়। রাত ১২টার পর অপরাধ রুজু হয়।

আরও পড়ুন: ৩ জুন স্কুল খুললেও ক্লাস চালু হবে না! ফের কবে থেকে শুরু পঠন পাঠন? রইল লেটেস্ট আপডেট

পাল্টা শুভেন্দুর আইনজীবীর দাবি, ওই দিন ওই বাড়িতে কোনও ফ্লাইং স্কোয়াড আসেনি। এরপরই পুলিশকে উদ্দেশ্য করে বিচারপতি সিনহা বলেন, ‘যদি আপনারা কয়েকদিনের জন্য অপেক্ষা করেন, তাহলে তো আকাশ ভেঙে পড়বে না।’ আদর্শ আচরণবিধি কার্যকর থাকার সময় যে ‘দ্রুততার’ সঙ্গে পুলিশি অভিযান চালানো হয়েছে, তা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন বিচারপতি।

suvendu hc

বিচারপতি সিনহা বলেন, এই সময় শুধুমাত্র ফ্লাইং স্কোয়াড অভিযান চালাতে পারে। এরপরই পুলিশের উদ্দেশে বিচারপতির প্রশ্ন, শাসক দলের নেতাদের বিরুদ্ধে যদি এরকম খবর পেতেন, তাহলে কি এরকম ‘দ্রুততা’ দেখাতেন? দু’পক্ষের যুক্তি শুনে পুলিশকে উদ্দেশ্য করে বিচারপতি সিনহা বলেন, ‘‘একটা অভিযোগ পেয়েই পুলিশ চলে গেল? কোনো রকম অনুসন্ধান করল না? এ রকম তল্লাশি অভিযানের ক’টা উদাহরণ রয়েছে?’’

১০ জুন পর্যন্ত বিরোধী দলনেতার কোলাঘাটের অফিস বা বাড়িতে তল্লাশিr ওপর অন্তর্বর্তী স্থগিতদেশ দিয়েছেন বিচারপতি সিনহা। তবে এই সময়ের মধ্যে জরুরি কোনও নির্দেশের প্রয়োজন হলে রাজ্য আদালতের দ্বারস্থ হতে পারবে, সেই রাস্তা খোলা আছে বলেও জানায় হাইকোর্ট।

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর