হাতে মাত্র কয়েক দিন! শেষ মুহূর্তেই TET নিয়ে বিরাট আপডেট সামনে এল

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ সম্প্রতি টেটের দিন পরিবর্তনের আর্জি জানিয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিল বিজেপি (BJP)। প্রাথমিকে নিয়োগের যোগ্যতা নির্ণায়ক এই পরীক্ষার দিন পরিবর্তন চেয়ে কলকাতা হাইকোর্টে গিয়েছিলেন মেদিনীপুরের বিজেপি সাংসদ দিলীপ ঘোষ। তবে মঙ্গলবার আদালত সাফ জানিয়ে দিল
২৪ ডিসেম্বরই হচ্ছে প্রাথমিকের টেট (TET)। দিলীপ ঘোষের (Dilip Ghosh) আবেদন খারিজ প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে।

   

তবে হাই কোর্ট জানিয়েছে, ‘রাজ্য প্রশাসনকে নিশ্চিত করতে হবে যাতে প্রত্যেক পরীক্ষার্থী সুরক্ষিত ভাবে পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছতে পারে। পরিবহণ দফতরকে উপযুক্ত ব্যবস্থা রাখতে হবে। যারা পরীক্ষার অ্যাডমিট কার্ড (Admit Card) দেখাবে তাদের সঠিক সময়ে পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছে দিতে হবে’।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি টেটের (Primary TET Exam) দিন পরিবর্তন করেছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। গত ১০ ডিসেম্বর বেলা ১২টা থেকে টেট পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল। তবে হঠাৎই বিজ্ঞপ্তি দিয়ে পর্ষদ (West Bengal Board Of Primary Education) জানায়, ২৪ ডিসেম্বর নেওয়া হবে টেট। এই তারিখ প্রকাশ্যে আসতেই শোরগোল পড়ে যায়। কারণ পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচী অনুযায়ী সেই দিনই কলকাতায় প্রধানমন্ত্রীর গীতাপাঠ কর্মসূচি। লক্ষ লক্ষ ভক্তের সমাগম।

একই দিনে দুটো মেগা ইভেন্ট হলে সমস্যা হতে পারে। বিরাট লোকের সমাগম হওয়ায় পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছতে অসুবিধা হতে পারে পরীক্ষার্থীদের। এই মর্মে পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়ার জন্য আবেদন জানান বিজেপি নেতা দিলীপ ঘোষ। তবে মঙ্গলবার সেই আবেদন খারিজ করে দিল প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ।

tet

আরও পড়ুন: তুমুল শীতের মধ্যেই প্লট টুইস্ট! দক্ষিণবঙ্গে আপডেট জানলে চমকে যাবেন: আবহাওয়ার খবর

প্রসঙ্গত, দিন পরিবর্তন বিষয়ে পর্ষদ সভাপতি গৌতম পাল জানিয়েছিলেন, ‘‘পরীক্ষা একেবারে নির্বিঘ্নে হয় সেই জন্য আমরা এ বার বেশ কিছু নতুন পদক্ষেপ করছি। তার জন্য আরও কিছুটা সময় প্রয়োজন। তাই পর্ষদ পরীক্ষার দিন পিছনোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ।’’ যাতে টেট পরীক্ষা সুষ্ঠ ভাবে পরিচালনা করা যায় তা নিশ্চিত করতে নবান্নেও বৈঠক করা হয়।

এদিকে ব্রিগেডে লক্ষ লক্ষ কণ্ঠে গীতাপাঠের দিনই টেট পরীক্ষা নিয়ে মন্তব্য করেছেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় না এখানে সমস্যার কিছু হবে। ‘

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর