রবীন্দ্রনাথ আমলের পর এই প্রথম! অমর্ত্য সেনের উল্টো কাজ করে নজির গড়লেন দম্পতি

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ বিগত কিছুমাস ধরে বারংবার সংবাদের শিরোনামে উঠে এসেছে বিশ্বভারতী (Visva-Bharati University)। নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য (Amartya Sen) সেন এবং বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষের মধ্যে জমি বিবাদের এখনও মীমাংসা হয়নি। সেই নিয়ে ঝামেলা তুঙ্গে। এককথায় বিশ্বভারতীর জমি নিয়ে নোবেলজয়ী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে দড়ি টানাটানি চলছে তখন সামনে অবাক করা এক ঘটনা।

এবার মহানুভতার পরিচয় দিয়ে নজির গড়লেন বিশ্বভারতীর এক প্রাক্তনী। জানা গিয়েছে তিনি প্রথম থেকেই বিশ্বভারতীতে পড়াশোনা করেছেন এবং বোলপুরের শান্তিনিকেতন এলাকায় একটি আড়াই বিঘা জমি কিনেছিলেন। সেখানে বাড়িও তৈরী করেছিলেন। এখন সেই জমিসহ বাড়ি তিনি বিশ্বভারতীকে দান করলেন।

   

জমি নিয়ে হাজারো কাণ্ডের মধ্যে তার এইভাবে জমি সহ বাড়ি দান নজির গড়ল বলেই দাবি করেছেন বিশ্বভারতীর উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী। বৃহস্পতিবার জমি-বাড়ির কাগজপত্র বিদ্যুতের হাতে দেন ওই প্রাক্তন পড়ুয়ার বাবা-মা। বিশ্বভারতীর নামে ওই জমি করে দেন মালিক অরবিন্দ মুখোপাধ্যায় এবং তার স্ত্রী নীতা মুখোপাধ্যায়। জানা গিয়েছে ছেলে-মেয়েদের নিয়ে লন্ডনে থাকেন তারা।

আরও পড়ুন: ‘সরকার চাকরি দিতে চায়, কিন্তু…’, শিক্ষামন্ত্রীকে পাশে নিয়ে যা বললেন পর্ষদ সভাপতি গৌতম পাল

কর্তৃপক্ষ জানায়, কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের আমলে অনেকেই রয়েছেন যারা জমি জমা দান করেছিলেন।কিন্তু তার পর এই প্রথম কেউ বিশ্বভারতীকে এই বিপুল সম্পত্তি দান করলেন। এই সম্পত্তি কী ভাবে ব্যবহার করা হবে, তা নিয়ে চিন্তাভাবনা চলছে।

visva bharati

ওদিকে এর পরেই নাম না করে অমর্ত্য সেনকে নিশানা করেন বিশ্বভারতীর উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী। বলেন, “এখানেই ছোট মানসিকতা ও বড় মানসিকতার প্রমাণ পাওয়া যায়।” তিনি আরও বলেন, ‘‘এক দিকে এক বিখ্যাত ব্যক্তি সাড়ে ছ’কাঠা জায়গার জন্য গোটা বিশ্ব উত্তাল করে চলেছেন। তার জন্য কী কী হচ্ছে, সকলেই দেখতে পাচ্ছেন।”

আরও পড়ুন: ডিগবাজির পর এবার মদ্যপ অবস্থায় যা করলেন তৃণমূলের বাইরন… তুলকালাম কাণ্ড বাধাল বিজেপি

তার কথায়, “এমন জায়গায় দাঁড়িয়ে এখনও এমন ব্যক্তি আছেন, যিনি বিশ্বভারতীকে এত বড় একটি সম্পত্তি নিঃস্বার্থ ভাবে দিয়ে দিলেন। এ বিরাট প্রশংসনীয় এবং বিশ্বভারতী অরবিন্দ মুখার্জী এবং নিতা মুখার্জির কাছে কৃতজ্ঞ।”

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর