প্রধানমন্ত্রীর বা মুখ‍্যমন্ত্রীর কিছু হলে কি অপরজন দেখতে আসবেন না? প্রশ্ন সাংসদ দেবের

বাংলাহান্ট ডেস্ক: বরাবর রাজনৈতিক সৌজন‍্যের বার্তা দিয়ে এসেছেন দেব (Dev)। বিরোধী দলকে কটাক্ষ শানালেও তাঁকে শালীনতার মাত্রা ছাড়াতে দেখা যায়নি কখনো। দলীয় কর্মীদেরও বারবার সৌজন‍্য বজায় রাখার বার্তা দিয়েছেন তৃণমূল সাংসদ। এবার একই সুর শোনা গেল বিজেপির মহা তারকা সদস‍্য মিঠুন চক্রবর্তীর (Mithun Chakraborty) কণ্ঠেও।

দুজনে দুই কট্টর প্রতিদ্বন্দ্বী দলের সমর্থক।  এদিকে টলিউডে মিঠুনের সঙ্গেই ‘প্রজাপতি’ ওড়াচ্ছেন দেব। আসন্ন ছবিতে বাবা ছেলের ভূমিকায় অভিনয় ক‍রছেন দুজনে। কিন্তু বর্ষীয়ান অভিনেতা জানান, এত বছরে একবারের জন‍্যও রাজনীতি নিয়ে আলোচনা করেননি। একে অপরের রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গিকে শ্রদ্ধা করেন তাঁরা।


সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে মিঠুন স্পষ্টই বলেন, দেব বারবার রাজনৈতিক সৌজন‍্যের কথা বলেন। সেটা থাকা উচিত। মিঠুনের কথায়, ‘উপরে উপরে সব ঠিক আছে, সবাই বন্ধু। নীচে যারা ওরা বোঝে না, ধুমধাড়াক্কা করে বেড়াচ্ছে।’

অন‍্যদিকে দেব বলেন, প্রথম বার নির্বাচনে জেতার সময় থেকেই রাজনৈতিক সৌজন‍্য বজায় রেখে এসেছেন। প্রার্থী হিসাবে নাম ঘোষনা হওয়ার পরেই প্রবীণ সিপিএম প্রার্থীর বাড়িতে গিয়ে আশীর্বাদ নিয়েছিলেন। এখনো সৌজন‍্য বজায় রেখেছেন তিনি।

এরপরেই দেবের প্রশ্ন, ঈশ্বর সকলকে সুস্থ রাখুন। কিন্তু এখন প্রধানমন্ত্রীর কিছু হলে মুখ‍্যমন্ত্রী দেখতে যাবেন না নাকি মুখ‍্যমন্ত্রীর কিছু হলে প্রধানমন্ত্রী আসবেন না? এখানেই থামেননি দেব। এদিন বারাণসীরও ভূয়সী প্রশংসা করেন তিনি। প্রজাপতি ছবির একটা অংশের শুটিং হয়েছে বারাণসীতে।

গঙ্গা আরতি দেখে মুগ্ধ মিঠুন বলেন, সবার অন্তত একবার এই আরতি দেখা উচিত। সেই সঙ্গে বারাণসীর দেখাদেখি কলকাতাতেও গঙ্গা আরতি শুরুর পরিকল্পনাকেও সাধুবাদ জানান মিঠুন দেব। তৃণমূল সাংসদ বলেন, ভাল কোনো জিনিস অন‍্যের উদ‍্যোগে অনুপ্রাণিত হয়ে করা হলে তাতে কোনো আপত্তি থাকারই কথা নয়।

Avatar
Niranjana Nag

সম্পর্কিত খবর