টাইমলাইনবর্ধমানরাজনীতি

ভালোবাসার দাবীতে প্রেমিকের বাড়ির সামনে প্রেমিকার ধর্না, পলাতক তৃণমূল নেতার ছেলে

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ ভালোবাসার দাবীতে প্রেমিকার বাড়ির সামনে প্রেমিককে বহুবার ধর্না দিতে দেখলেও, বর্ধমানে (Bardhaman) তৃণমূল (All India Trinamool Congress) নেতার বাড়িতে ঘটল এক উল্টো ঘটনা। দীর্ঘ ৫ বছর ধরে প্রেম করেছ, আর এখন পালিয়ে বেড়াচ্ছ। বিয়ে তোমাকে করতেই হবে। প্রেমিককে বিয়ের দাবীতে তারই বাড়ির সামনে এবার ধর্নায় বসল স্বয়ং প্রেমিকা।

দীর্ঘ ৫ বছরের সম্পর্ক
ফিল্মি গল্প মনে হলেও, আসলে এটিই বাস্তব সত্য। পূর্ব বর্ধমানের মেমারি থানার নওপড়া গ্ৰামের পঞ্চায়েতের সদস‍্য শামিম চৌধুরীর ছেলে সৌমেনের সঙ্গে এলাকারই এক তরুণীর প্রেম ছিল। প্রেমিকা অভিযোগ করেছে, এক দুদিন নয়, গোটা পাঁচটি বছর তাঁর সঙ্গে প্রেম করার পর বিয়ের প্রতিশ্রুতিও দেয়। এই কথার উপর জোর দিয়ে বহুবার সহবাসও করে সৌমেন। কিন্তু এখন আর তাঁকে বিয়ে করতে চাইছে না।

তরুণীর মামার অভিযোগ
ঘটনার ভিত্তিতে তরুণীর মামা রাজু শেখ অভিযোগ করেছেন, বেশ কিছু দিন আগে ওই তরুণীকে নিয়ে তাঁর বাড়িতে গিয়েছিলেন সৌমেন। কিন্তু বাড়ির লোকেরা এই সম্পর্কে মেনে নেয় নি। তাঁর জেরেই রাতারাতি সৌমেনকে কোথাও পাঠিয়ে দিয়ে তাঁর বাবাও বাড়ি থেকে বেরিয়ে পরে। কিন্তু ওই তরুণীকে তারা একাই ফিরে যেতে বলে। রাত হওয়ায় সে একা ফিরতে না পারায়, পুলিশের সাহায্য নিয়ে তরুণীকে বাড়ি ফেরাবার ব্যবস্থা করা হয়।

প্রেমিকা নয়, স্ত্রীর মর্যাদা চাই
তরুণী অভিযোগ জানিয়েছে, এই ঘটনার পর থেকেই সৌমেন তাঁর ফোনও ধরছে না আর দেখাও করছে না। তাই নিজের ভালবাসার মানুষকে নিজের করে পেতে রবিবার প্লাকার্ড হাতে পরিবারের লোকজনের সঙ্গে প্রেমিক সৌমেনের বাড়ির সামনে ধর্নায় বসে প্রেমিকা। তাঁর দাবী, ‘অনেক দিন হয়েছে, এবার আর প্রেমিকা নয়, স্ত্রীর মর্যাদা চাই’।

সৌমেনের বাবা তৃণমূলের সদস্য হওয়ায় ওই তরুণীকে টাকার লোভ দেখায় বলেও অভিযোগ উঠেছে। কিন্তু সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে সৌমেনের বাবা শামিম চৌধুরী জানিয়েছেন, তিনি তৃণমূলের সদস্য বলে তাঁর বিরুদ্ধে চক্রান্ত করা হচ্ছে। তবে কোন কিছুতেই নিজের ভালোবাসার মানুষকে হারাতে নারাজ প্রেমিকা। প্রেমিক সৌমেনকে বিয়ে, তবেই ফিরবে সে।

Back to top button