টাইমলাইনবিনোদন

কে বলবে অষ্টাদশী কন‍্যে! হট ফিগারে মর্ডান লুকে নেটপাড়ায় ঝড় তুললেন ‘রাণীমা’ দিতিপ্রিয়া

বাংলাহান্ট ডেস্ক: বাংলা টেলিভিশন জগতে এখন অন‍্যতম সম্ভাবনাময় অভিনেত্রী হলেন দিতিপ্রিয়া রায় (ditipriya roy)। এই কম বয়সেই তাঁর অভিনয়ের যা ধার তা অনায়াসে টেক্কা দিতে পারে তাবড় অভিনেতা অভিনেত্রীদের। অত‍্যন্ত ছোট বয়স থেকেই অভিনয় করছেন দিতিপ্রিয়া। আর বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আরো নিখুঁত হয়ে উঠছে তাঁর অভিনয়।

মাত্র আঠেরো বছর বয়সেই যে উচ্চতায় পৌঁছেছেন দিতিপ্রিয়া তা নিঃসন্দেহে প্রশংসার যোগ‍্য। শুধু টলিউড বা বাংলা সিরিয়াল নয়, বলিউডেও অভিষেক করে ফেলেছেন তিনি। তাঁর অভিনয়ের জাদুতে রাণী রাসমণি অন‍্যতম জনপ্রিয় সিরিয়াল হয়ে উঠেছে।


আর একটা বিষয় না বললেই নয়। অভিনয়ের সঙ্গে সঙ্গে কিন্তু পাল্লা দিয়ে বাড়ছে দিতিপ্রিয়ার সৌন্দর্য। শাড়িই হোক বা ওয়েস্টার্ন পোশাক, সবেতেই আশ্চর্যজনক ভাবে মানিয়ে যান দিতিপ্রিয়া। ফটোশুটের জন‍্য ট্র‍্যাডিশনাল সাজে সাজতে হলেও নিজের হালকা ক‍্যাজুয়াল পোশাকই পছন্দ অভিনেত্রীর।

সম্প্রতি একটি ছবি শেয়ার করেছেন দিতিপ্রিয়া। সম্পূর্ণ ওয়েস্টার্ন পোশাকে ক‍্যামেরাবন্দি হয়েছেন তিনি। নিউজ প্রিন্টের শর্ট ড্রেস, বড় হুপ ইয়াররিং, স্টাইল করে করা ছোট চুল, সঙ্গে সানগ্লাস। দিতিপ্রিয়ার এই লুক দেখে চোখ ছানাবড়া নেটিজেনদের। তুমুল ভাইরাল হয়ে গিয়েছে ছবিটি।

প্রসঙ্গত, বাংলা নতুন বছরের প্রথম দিনেই আরো এক সুখবর পেলেন দিতিপ্রিয়া। সেই সুখবর অনুরাগীদের সঙ্গেও ভাগ করে নিয়েছেন তিনি। নববর্ষের প্রথম দিনেই একটি নতুন ছবিতে স্বাক্ষর করেছেন তিনি। পরিচিলক পাভেলের একটি ছবিতৈ দেখা যেতে চলেছে দিতিপ্রিয়াকে। নববর্ষের প্রথম দিনেই নতুন পথচলা শুরু করলেন অভিনেত্রী।

বছরের প্রথম দিনেই নতুন সাজে হাজির হয়ে অনুরাগীদের চমকে দিয়েছিলেন দিতিপ্রিয়া। একটি ফ‍্যাশন ম‍্যাগাজিনের হয়ে করা ফটোশুটের ছবি অনুরাগীদের সঙ্গে শেয়ার করে নিয়েছেন তিনি। মায়ের কথা মতো ছোট থেকেই পয়লা বৈশাখের দিন নতুন জামা পরে একটু সাজগোজের রীতি বজায় রেখেছেন।

প্রত‍্যেক বছর এই দিনে বন্ধুবান্ধবদের সঙ্গে রেস্তোরাঁতে খেতেও যান বলে জানিয়েছেন দিতিপ্রিয়া। কিন্তু এবারে আর সেটা করেননি তিনি। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতির দিকে তাকিয়েই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন দিতিপ্রিয়া।

তাঁর মুখের দিকে তাকিয়ে রয়েছে অনেক মানুষের পরিবার। তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে বন্ধ হয়ে যেতে পারে ওই মানুষ গুলোর রোজগার। তাই সব দিক বিবেচনা করেই এবারে আর রেস্তোরাঁতে যাননি বলে জানিয়েছেন দিতিপ্রিয়া।

Related Articles

Back to top button