দামি গ্যাস সিলিন্ডারের ঝামেলা শেষ, জানুন কবে থেকে পাওয়া যাবে ভর্তুকি

বাংলা হান্ট ডেস্ক: করোনা মহামারীর ফলে ইতিমধ্যেই জর্জরিত গোটা বিশ্ব। ভারতেও হানা দিয়েছে অদৃশ্য এই মারণ ভাইরাস। যার প্রত্যক্ষ প্রভাব পড়েছে অর্থনীতিতেও। গ্যাস, পেট্রোল-ডিজেল, তেল-সবজি সবকিছুর দামই এখন আকাশ ছুঁয়েছে।

এমতাবস্থায়, এক্কেবারে সোজা কথায় আগুন লেগেছে গৃহস্থের হেঁসেলে। এর অন্যতম কারণ হল প্রতিনিয়ত রান্নার গ্যাসের দাম বৃদ্ধি। প্রায় প্রতি মাসেই দাম বাড়ছে জ্বালানির। যার ফলে মাথায় হাত পড়েছে মধ্যবিত্তদের।বর্তমানে দেশের বিভিন্ন শহরে ১৪.২ কেজির এলপিজি সিলিন্ডারের দাম ৯০০ থেকে ৯৫০ টাকা।

   

যদিও, এর আগে কেন্দ্রীয় সরকার এলপিজি সিলিন্ডার কেনার ক্ষেত্রে গ্রাহকদের ভর্তুকি দেওয়া শুরু করেছিল। যার কারণে সিলিন্ডারের দাম সাধারণ মানুষের বাজেটের মধ্যেই থাকত। কিন্তু করোনা মহামারী শুরু হওয়ার পর সরকার সেই ভর্তুকি বন্ধ করে দেয়।

পরবর্তীকালে সরকার অবশ্য একটি পরিমিত ভর্তুকি চালু করলেও, তা সিলিন্ডারের ক্রমবর্ধমান মূল্যবৃদ্ধির কাছে খুবই নগণ্য ছিল। তবে, এখন আবার কিছুটা আশার কথা শোনা যাচ্ছে।

মনে করা হচ্ছে যে, আগের মতোই সরকার এলপিজি সিলিন্ডার কেনার ক্ষেত্রে ভর্তুকির ব্যবস্থা করবে। ভর্তুকি শুরু হলে তার সরাসরি প্রভাব পড়বে আপনার পকেটে এবং সিলিন্ডারের দামও কমে আসবে। সম্প্রতি এই সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব অর্থ মন্ত্রণালয়েও পাঠানো হয়েছে।

gas news.

অর্থ মন্ত্রকের কাছে পাঠানো প্রস্তাবে বলা হয়েছে যে, ঝাড়খণ্ড, মধ্যপ্রদেশ এবং উত্তর-পূর্ব রাজ্যগুলিতে এলপিজি সিলিন্ডারের ক্ষেত্রে ভর্তুকি দেওয়া হচ্ছে। দেশের অন্যান্য রাজ্যেও এটি চালু করা দরকার।

অর্থ মন্ত্রণালয় এই প্রস্তাব অনুমোদন করলে সরকার পেট্রোলিয়াম কোম্পানিগুলির ডিলারদের ৩০৩ টাকা করে ভর্তুকি দেবে। সিলিন্ডারের দামের ক্ষেত্রে সরাসরি এই ছাড়ের সুবিধা পাবেন গ্রাহকরা। অর্থাৎ, যে সিলিন্ডারের জন্য আপনি ৯০০ টাকা দিচ্ছেন, সেখানে আপনাকে দিতে হবে মাত্র ৫৮৭ টাকা।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর