আধার লিঙ্ক না করলে ভোটার তালিকা থেকে কাটা পড়বে নাম? মুখ খুলল নির্বাচন কমিশন

বাংলা হান্ট ডেস্ক : আধার (Aadhaar Card) ও ভোটার কার্ডের (Voter Card) সংযুক্তিকরণ নিয়ে বেশ দ্বন্দ্বে রয়েছেন আম জনতা। এই দুই কার্ড লিঙ্ক করা কি অতি আবশ্যক? সেক্ষেত্রে যদি কোনও গ্রাহক তার দুই কার্ড লিঙ্ক না করায় তাহলে তাকে কী কী সমস্যায় পড়তে হবে তা নিয়ে রয়েছে নানা প্রশ্ন। এমন পরিস্থিতিতে আধার এবং ভোটার কার্ডের সংযুক্তিকরণ নিয়ে ফের একবার অবস্থান স্পষ্ট করল নির্বাচন কমিশন।

   

উল্লেখ্য, গত ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসে আধার ও ভোটার আইডি (Voter ID) সংযুক্তিকরণের আইন পাশ হয়েছিল লোকসভায়। তারপর থেকেই এই দুই কার্ড লিঙ্ক করার পরামর্শ দিচ্ছে কেন্দ্র। তারপর থেকেই প্রশ্ন উঠেছিল, আধার-ভোটার লিঙ্ক না করলে কী কী অসুবিধার সম্মুখীন হতে হবে গ্রাহকদের? সামাজিক মাধ্যমে গুঞ্জন উঠেছিল, আধার-ভোটার লিঙ্ক না করলে ভোটার তালিকা থেকে নাম বাদ দেওয়া হবে।

এখানে বলে রাখি, নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, কোনও নাগরিকের জন্যই এই আধার লিঙ্ক করা কিন্তু বাধ্যতামূলক নয়। আধার-ভোটার সংযুক্ত না করলেও কারো নাম ভোটার তালিকা থেকে বাদ যাবেনা। যদি কেউ স্বেচ্ছায় আধার-ভোটার সংযুক্ত করতে চায় তাহলে সে করতেই পারে। তবে কারও জন্যই এটি বাধ্যতামূলক নয়। জনগণকে আশ্বস্ত করতে একটি প্রেস বিবৃতিও জারি করেছে কমিশন।

এই বিষয়ে ‘মিথ ভার্সেস রিয়েলিটি’ নাম দিয়ে একটি ওয়েবসাইটও চালু করেছে কমিশন। এইদিন ওয়েবসাইটটির উদ্বোধন করেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার রাজীব কুমার, নির্বাচন কমিশনার জ্ঞানেশ কুমার এবং নির্বাচন কমিশনার সুখবীর সিংহ সান্ধু। মূলত গুজব, মিথ্যাচার ও সত্যতার পার্থক্য বোঝানোর জন্যই এই ওয়েবসাইটের উদ্বোধন করেছে কেন্দ্রীয় সরকার।

earthquake (1)

ওয়েবসাইট উদ্বোধনের পর এইদিন নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, দেশের যে কোনও ব্যক্তি এই ওয়েবসাইটে গিয়ে খবরের সত্য, মিথ্যা যাচাই করে নিতে পারবেন। মূলত ভোটের আগে দুস্কৃতিরা যাতে মিথ্যা খবর ছড়িয়ে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি করতে না পারে তার জন্যই এই পদক্ষেপ।

Moumita Mondal
Moumita Mondal

মৌমিতা মণ্ডল, গ্র্যাজুয়েশনের পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। বিগত ৩ বছরেরও বেশি সময় ধরে লেখালেখির সাথে যুক্ত। প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর