বড় খবর! এবার SBI ছাড়া এই ব্যাঙ্কগুলি হয়ে যাবে প্রাইভেট! সরকার জারি করল পূর্ণাঙ্গ তালিকা

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক: এবার ব্যাঙ্কের গ্রাহকদের জন্য একটি বড়সড় খবর সামনে এল। এমনিতেই আমাদের দেশে একাধিক ব্যাঙ্কের বেসরকারিকরণ (Bank Privatisation) করেছে সরকার (Government)। এমতাবস্থায়, ফের একবার ব্যাঙ্কের বেসরকারিকণের প্ৰসঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ খবর সামনে এসেছে। উল্লেখ্য যে, এর আগেই সরকার একাধিক ব্যাঙ্ক ও কোম্পানিকে বেসরকারিকরণের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। সেই লক্ষ্যে দ্রুত কাজ চলছে। এমনকি, সরকারি কর্মচারীরাও এর বিরোধিতা করেছেন।

SBI ছাড়া সব ব্যাঙ্কই হতে পারে প্রাইভেট: এই প্রসঙ্গে দেশের দুই শীর্ষস্থানীয় অর্থনীতিবিদ জানিয়েছেন, সরকারের স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া বাদে সমস্ত সরকারি ব্যাঙ্ক প্রাইভেট হাতে তুলে দেওয়া উচিত। এদিকে, নীতি আয়োগ জানিয়েছে যে, দেশের ৬ টি সরকারি ব্যাঙ্কের বেসরকারিকরণ করা হবে না।

তালিকা প্রকাশ করেছে নীতি আয়োগ: নীতি আয়োগের জারি করা তালিকায় বলা হয়েছে যে, সরকার পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক, ইউনিয়ন ব্যাঙ্ক, কানাড়া ব্যাঙ্ক, স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া, ব্যাঙ্ক অফ বরোদা এবং ইন্ডিয়ান ব্যাঙ্কের বেসরকারিকরণ করবে না। এই প্রসঙ্গে সরকারি আধিকারিকদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, যে সমস্ত সরকারি ব্যাঙ্ক কনসোলিডেশনের অংশ ছিল সেগুলির প্রত্যেকটিকে বেসরকারিকরণের বাইরে রাখা হয়েছে।

২০১৯ সালের আগস্টে ব্যাঙ্কগুলির সংযুক্তিকরণ হয়: এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি যে, ২০১৯ সালের আগস্ট মাসে ১০ টি ব্যাঙ্কের মধ্যে ৪ টিকে সংযুক্তিকরণ করে সরকার। যার ফলে দেশে সরকারি ব্যাঙ্কের সংখ্যা ২৭ থেকে কমে ১২-তে নেমে এসেছে। যদিও, বর্তমানে এইসব ব্যাঙ্কের বেসরকারিকরণ নিয়ে কোনো পরিকল্পনা নেই। অর্থ মন্ত্রক জানিয়েছে, এইসব ব্যাঙ্ককে বেসরকারিকরণের বাইরে রাখতে হবে।

nirmala sitharaman

ঘোষণা করেছিলেন অর্থমন্ত্রী: গত বছরের বাজেটে অর্থমন্ত্রী ঘোষণা করেছিলেন যে, IDBI ব্যাঙ্কের বেসরকারিকরণ করা হবে। পাশাপাশি, সরকার ওই ব্যাঙ্কের শেয়ার বিক্রির পরিকল্পনাও করে। ওই সংক্রান্ত প্রক্রিয়াও এগিয়েছে। এদিকে, বিভিন্ন দিক থেকে আসা ক্রমাগত প্রতিবাদ সত্বেও সরকার ইতিমধ্যেই বেসরকারিকরণের বিষয়ে তাদের অবস্থান স্পষ্ট করেছে। এর পাশাপাশি অর্থমন্ত্রী বলেছিলেন যে, সেটি একটি বিমা কোম্পানির কাছে বিক্রি করা হবে।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর