আধার জালিয়াতি! নিঃস্ব হয়ে যেতে পারেন মুহুর্তেই, ব্যাঙ্কের টাকা বাঁচাতে মেনে চলুন এই কাজগুলো

   

বাংলাহান্ট ডেস্ক : মানুষ মানুষকে ঠকাতেই থাকে নানাভাবে, নানা সময়ে! কিন্তু সাম্প্রতিক বছরগুলিতে অনলাইন স্ক্যাম যেন আমাদের ব্যস্ত জীবনের সঙ্গী হয়ে দাঁড়িয়েছে। সাইবার ক্রিমিনালরা এখন মানুষকে ঠকাতে প্রায় প্রতিদিনই নতুন নতুন উপায় উদ্ভাবন করছে। স্মার্টফোন, ল্যাপটপ ছেড়ে এখন তাদের নজর পড়েছে বিভিন্ন ডকুমেন্টের উপর।

এবার আপনার আধার কার্ডটিও আর সুরক্ষিত নেই।এদিকে, আধার কার্ড ভারতের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ পরিচয় নথি। সে ব্যাঙ্কের কোনও কাজ হোক না, কোথাও ঘুরতে যাওয়া, আধার কার্ড ছাড়া এক মুহূর্ত চলার উপায় নেই। কিন্তু বহু ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে, এই আধার কার্ডের জালিয়াতির কারণেও আমজনতাকে বিপদে পড়তে হচ্ছে। এই জন্য, আধার কার্ড ব্যবহার করার সময় আপনাকে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।

আধার কার্ড জালিয়াতি কীভাবে এড়িয়ে চলবেন?

১) UIDAI থেকে জারি করা আধার কার্ডের মধ্যেই থাকে আপনার যাবতীয় ব্যক্তিগত তথ্য। ব্যক্তিগত ডেটা যেমন বায়োমেট্রিক বিবরণ থেকে শুরু করে আঙুলের ছাপ, আইআরআইএস এবং ফটো সবকিছুই একসঙ্গে পাওয়া যায়। তাই এটি নিরাপদে রাখা উচিত। প্রতারকরা আপনার আধার কার্ড ব্যবহার করে বায়োমেট্রিক বিবরণ পেয়ে যায়, আর তা অপব্যবহার করে।

২) আপনি জালিয়াতি বা কেলেঙ্কারী এড়াতে যে কোনও কাজে আপনার আসল আধার কার্ড দেওয়ার পরিবর্তে, ফটো কপি ব্যবহার করুন। যদি আসল আধার কার্ড দেওয়ার খুব প্রয়োজন পড়ে সেক্ষেত্রে আগে থেকেই সব বিষয়ে বিস্তারিত জেনে নিন।

৩) UIDAI-এ এমন একটি ফিচার আছে যেই ফিচারে আপনি আপনার বায়োমেট্রিক ডেটা লক করতে পারেন। এমন করলে কোনও প্রতারক আপনার বায়োমেট্রিক চুরি করতে পারবে না।

job fraud

৪) সবসময় নিজের স্মার্টফোন থেকে ই আধার ডাউনলোড করুন। যে কোনও সাইবার ক্যাফে বা অন্য ব্যক্তির ডিভাইস থেকে এটি ডাউনলোড করবেন না। এর ফলে যে সিস্টেম থেকে আধার ডাউনলোড করা হয়েছিল, তার কাছে সমস্ত তথ্য থেকে যায়।

Avatar
Soumita

আমি সৌমিতা। বিগত ৩ বছর ধরে কর্মরত ডিজিটাল সংবাদমাধ্যমে। রাজনীতি থেকে শুরু করে ভ্রমণ, ভাইরাল তথ্য থেকে শুরু করে বিনোদন, পাঠকের কাছে নির্ভুল খবর পৌঁছে দেওয়াই আমার একমাত্র লক্ষ্য।

সম্পর্কিত খবর