‘India’ নাম পরিবর্তন করে রাখা হোক শুধুই ‘ভারত’! মুক্তি মিলুক দাসত্ব থেকে! দাবি BJP সাংসদের

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক : বিরোধী জোটের নাম ইন্ডিয়া (I.N.D.I.A.) রাখার পর থেকে একের পর বিতর্ক সামনে উঠে আসছে। বিজেপির (Bharatiya Janata Party) রাজ্যসভার সাংসদ নরেশ বনসাল দাবি করেন দেশের নাম শুধু ‘ভারত’ রাখা হোক এবং ‘ইন্ডিয়া’ বাদ দেওয়া হোক। তাঁর এই মন্তব্যের কারণ অবশ্যই বিরোধী দলগুলির জোটের নাম ‘ইন্ডিয়া’ হওয়া।

তাঁর দাবি এই মুহুর্তে দেশে স্বাধীনতার স্বর্ণযুগ চলছে। সংবিধানের ১ নং ধারা সংশোধন করে এই পবিত্র ভূমির নাম শুধু ‘ভারত’ রাখা উচিত। ‘মোদি বনাম ইন্ডিয়া’ লিখে দেশের নামকে রাজনৈতিকভাবে ব্যবহার করছে বিরোধী দলগুলো।

তিনি মনে করিয়ে দেন যে গত স্বাধীনতা দিবসে লাল কেল্লার প্রাচীর থেকে জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেওয়ার সময় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিজেই বলেছিলেন যে দেশকে দাসত্বের প্রতীক থেকে মুক্ত করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী যে ‘৫টি শপথের’ কথা বলেছিলেন, তাতে দেশকে দাসত্বের মানসিকতা থেকে মুক্ত করার কথা বলা হয়েছিল। নরেশ বনসাল বলেন, ঔপনিবেশিক চিন্তাধারা থেকে পরিত্রাণ পেতে হবে এবং প্রথাগত ভারতীয় মূল্যবোধ ও চিন্তাভাবনাকে বাস্তবে রূপ দিতে হবে।

naresh

বিজেপি নেতা আরও বলেন, ‘স্বাধীনতার অমৃত মহোৎসব থেকে দেশ এক নতুন শক্তি ও অনুপ্রেরণা পেয়েছে। আমরা অতীতকে পিছনে ফেলে ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে চলেছি। ব্রিটিশ আমল থেকে চলে আসা অনেক আইন পরিবর্তন করা হয়েছে। ভারতীয় বাজেটের তারিখও পরিবর্তন করা হয়েছে, যা এখন পর্যন্ত ইংরেজ নিয়ম মেনে চলছিল। নতুন শিক্ষানীতির আওতায় তরুণদের বিদেশি ভাষা থেকে মুক্ত করা হচ্ছে। পঞ্চম জর্জ-এর মূর্তি অপসারণ করা হয়েছে। ইন্ডিয়া গেটে প্রতিস্থাপন করা হয়েছে নেতাজির মূর্তি।

নরেশ বনসাল বলেন, ব্রিটিশরা ভারতকে ২৫০ বছর শাসন করেছে। দেশের নাম পরিবর্তন করে ‘ইন্ডিয়া’ করেছে। স্বাধীনতা সংগ্রামীদের আত্মত্যাগের কারণে জাতি স্বাধীনতা পেয়েছিল। ১৯৫০ সালে যখন ভারতের সংবিধান লেখা হয়েছিল তখনও এটিকে ‘ভারত’ বলা হয়েছিল। তিনি বলেছিলেন যে এখন সময় এসেছে এটিকে পরিবর্তন করে ‘ভারত’ করার।

Avatar
Sudipto

সম্পর্কিত খবর