ফের নয়া রেকর্ড তৈরি করল ভারতীয় রেল! এক বছরে বিরাট লাভ, আয়ের পরিমাণ চমকে দেবে

বাংলা হান্ট ডেস্ক: দেশজুড়ে পণ্য পরিবহণের ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখে ভারতীয় রেল (Indian Railways)। কারণ, রেলের ওপর ভর করেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে সচল রয়েছে পণ্য পরিবহণের ব্যবস্থা। এমনকি, বর্তমান সময়ে যাত্রী পরিষেবার পাশাপাশি পণ্য পরিবহণের বিষয়টি আরও সহজ এবং গতিশীল করে তুলতে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ গ্রহণ করছে রেল। এমতাবস্থায়, একটি বড়সড় তথ্য সামনে এসেছে।

জানা গিয়েছে, চলতি অর্থবর্ষের প্রথম চারটি মাসে ভারতীয় রেল সর্বমোট ৫০০ এমটি পণ্য লোডিং করেছে। অর্থাৎ, ২০২৩ সালের এপ্রিল থেকে জুলাইয়ের মধ্যে মোট ৫০৭.৭ এমটি পণ্য লোডিং করেছে ভারতীয় রেল।

   

সবথেকে উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, এই পরিসংখ্যান গত বছরের এই একই সময়ে থাকা ৫০১.৫৫ এমটির তুলনায় ১.২৩ শতাংশ বেশি। এছাড়াও, জানিয়ে রাখি যে, ভারতীয় রেল চলতি বছরের এই সময়কালে সংশ্লিষ্ট খাতে ৫৫,৪৫৯ কোটি টাকা আয় করেছে। যা গতবছরের এই একই সময়কালে ছিল ৫৩,৭৩১ কোটি টাকা। অর্থাৎ, পরিসংখ্যানের দিক থেকে আয়ের পরিমাণ ৩.২২ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, “Hungry For  Cargo” স্লোগানকে সামনে রেখে সুলভে পণ্য পরিষেবার ক্ষেত্রে আরও উন্নয়ন ও সহজে ব্যবসা করার পরিপ্রেক্ষিতে সুযোগ বৃদ্ধির লক্ষ্যে ক্রমশ নজর দিচ্ছে ভারতীয় রেল। পাশাপাশি, বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ইউনিট স্থাপন সহ অনুকূল নীতি গ্রহণ ছাড়াও বিভিন্ন দিক গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করেই এই বিরাট সাফল্য অর্জন করেছে রেল।

জানা গিয়েছে, ২০২৩ সালের এপ্রিল থেকে জুলাইয়ের মধ্যে ভারতীয় রেলের মোট আয়ের পরিমাণ পৌঁছে গিয়েছে ৮০,৮৬৯ কোটি টাকায়। মূলত, এর এর মধ্যে যাত্রী ও পণ্য পরিবহণ সহ আরও বিভিন্ন ক্ষেত্রের আয় যুক্ত রয়েছে। এদিকে, গত বছরের এই একই সময়ে ভারতীয় রেলের মোট আয়ের পরিমাণ ছিল ৭৫,৮৪৭ কোটি টাকা।

Indian Railways has created a new record again

সুতরাং, এটা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে যে, গতবছরের এই একই সময়ের নিরিখে বর্তমান বছরে ভারতীয় রেলের মোট আয় ৬.৬৬২ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। এদিকে, ২০২৩ সালের জুলাই মাস অর্থাৎ আগামী মাসে পণ্য লোডিংয়ের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১২৩.৯৮ এমটি। পাশাপাশি, পণ্য খাতে জুলাই মাসে ভারতীয় রেলের আয়ের পরিমাণ হল ১৩,৫৭৮ কোটি টাকা। উল্লেখ্য যে, ২০২২ সালের জুলাই মাসে এই আয়ের পরিমাণ ছিল ১৩,১৬৩ কোটি টাকা।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর