অ্যাটাচড বাথরুম, কনফারেন্স রুম! ভারতীয় রেলের নতুন প্রিমিয়াম AC কোচ হার মানাবে বিমানের বিজনেস ক্লাসকে

বাংলা হান্ট ডেস্ক: বর্তমান সময়ে দেশের সমগ্র রেল (Indian Railways) ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজানো হচ্ছে। মূলত, ক্রমবর্ধমান যাত্রীদের কথা মাথায় রেখে এবং তাঁদের সুষ্ঠুভাবে পরিষেবা প্রদানের লক্ষ্যে নেওয়া হচ্ছে একের পর এক বড় সিদ্ধান্ত। যার জেরে প্রত্যক্ষভাবে লাভবান হচ্ছেন যাত্রীরা। ঠিক এই আবহে একটি বড় আপডেট সামনে এসেছে। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, চেন্নাইয়ের ইন্টিগ্রাল কোচ ফ্যাক্টরি (ICF) ভারতীয় রেলের জন্য নতুন প্রিমিয়াম AC কোচ প্রকাশ্যে এনেছে।

   

রিপোর্ট অনুসারে, নতুন প্রিমিয়াম AC কোচগুলিতে অ্যাটাচড বাথরুম, কনফারেন্স রুম এবং অন্যান্য বিভিন্ন অত্যাধুনিক সুবিধা সহ ভ্রমণের সময়ে বেশ কয়েকটি বিলাসবহুল সুবিধা উপলব্ধ করবে। যার জেরে, যাত্রীদের ট্রেনে ভ্রমণের অভিজ্ঞতা আরও উন্নত হবে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, নতুন প্রিমিয়াম কোচগুলি ব্যবসায়িক এবং বিলাসবহুল ভ্রমণকারীদের চাহিদা মেটাতে ডিজাইন করা হয়েছে। কোচের মধ্যে রয়েছে প্লাস সিটিং, হাই-স্পিড ওয়াই-ফাই, একটি অনবোর্ড এন্টারটেনমেন্ট সিস্টেম সহ দুর্দান্ত সেফটি ফিচার্স।

গত বছর, কাপুরথালাতে স্থিত রেল কোচ ফ্যাক্টরি (RCF)-তে একটি নতুন AC প্রথম শ্রেণির কোচ ডিজাইনের ধারণা উন্মোচন করেছে। এটিতে প্রথম শ্রেণির AC কোচে দু’জনের মতো একটি কমপ্যাক্ট কিউবিকেল রয়েছে। যেটি বিমানের বিজনেস ক্লাসে ভ্রমণের অভিজ্ঞতাকে মনে করাবে।

আরও পড়ুন: দেশে শুরু হতে চলেছে বিরাট নিলাম! অংশগ্রহণ করবেন আদানি-আম্বানি-মিত্তলরা, সামনে এল দিনক্ষণ

ভারতের প্রথম হাইড্রোজেন চালিত ট্রেন: এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি যে, গত ফেব্রুয়ারিতে রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব লোকসভায় জানিয়েছিলেন যে ভারতীয় রেল একটি ট্রেন ডিজাইন করেছে যেটি হাইড্রোজেন ফুয়েল সেলে চলবে। বৈষ্ণব বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকারের উত্থাপিত প্রশ্নের জবাব দিচ্ছিলেন। যেখানে জানতে চাওয়া হয়েছিল যে হাইড্রোজেন চালিত ট্রেন প্রযুক্তির উন্নয়নে সরকার কোনো অগ্রগতি করেছে কিনা। এর উত্তরে রেলমন্ত্রী জানান, “হাইড্রোজেন ফুয়েল সেল ব্যবহার করে একটি হাইড্রোজেন পাওয়ার ট্রেনের উন্নয়নের জন্য পাইলট প্রকল্প নেওয়া হয়েছে। এই প্রকল্পের পাওয়ার ট্রেনটি ডিজাইন করা হয়েছে।”

আরও পড়ুন: ভারত হবে সেমিকন্ডাক্টর হাব! প্ল্যান্ট তৈরির জন্য টাটা গ্রুপ সহ আরেকটি সংস্থাকে ১৮৮ একর জমি দিল এই রাজ্য

তিনি আরও বলেন, “এই উৎপাদনটি ICF, চেন্নাইয়ের প্রোডাকশন ইউনিটে করার পরিকল্পনা করা হয়েছে। এই ট্রেনটি রেলওয়েতে হাইড্রোজেন প্রযুক্তির ব্যবহার প্রদর্শন করবে।” জানিয়ে রাখি যে, ICF দ্বারা নির্মিত আরেকটি আধুনিক ট্রেন, বন্দে ভারত স্লিপার শীঘ্রই লঞ্চ করা হবে।রিপোর্ট অনুযায়ী, বন্দে ভারত স্লিপার ট্রেনগুলি এই মাসেই লঞ্চ করা হবে এবং এপ্রিলে ট্রায়াল শুরু হবে। প্রথম ধাপে ১০ টি বন্দে ভারত স্লিপার ট্রেন চালু করা হবে এবং নতুন পরিষেবার জন্য নির্ধারিত রুটগুলির মধ্যে রয়েছে দিল্লি-মুম্বাই এবং দিল্লি-হাওড়া রুট।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর