এবার ঘুমোতে চলল “ক্লান্ত” প্রজ্ঞান! এরপরে আদৌ কি উঠবে জেগে? বড় তথ্য সামনে আনল ISRO

বাংলা হান্ট ডেস্ক: ১৪ জুলাই ২০২৩-এ শুরু হয়েছিল সফর। সফলভাবে গন্তব্যে পৌঁছতে সময় লেগে যায় ৪০ দিনেরও বেশি। এমতাবস্থায়, গত ২৩ অগাস্ট ঠিক সন্ধ্যে ৬ টা ৪ মিনিট নাগাদ চাঁদের মাটি স্পর্শ করে চন্দ্রযান-৩ (Chandrayaan-3)-এর ল্যান্ডার বিক্রম। আর এই বিরাট সাফল্যের মাধ্যমে ইতিহাস তৈরি করে ISRO (Indian Space Research Organisation)।

এদিকে, সফলভাবে ল্যান্ডিংয়ের পরে বিক্রমের পেট থেকে বেরিয়ে আসে রোভার প্রজ্ঞান। ISRO-র নির্দেশ মেনে একের পর এক কাজ করে চলে সে। তবে, এবার চাঁদেই ঘুমের দেশে পাড়ি দিল “ক্লান্ত” প্রজ্ঞান। এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি যে, ISRO-র তরফে আগে থেকেই জানানো হয় যে এক চন্দ্রদিনের আয়ু নিয়ে চাঁদে গিয়েছে বিক্রম ও প্রজ্ঞান।

   

এদিকে, পৃথিবীর ১৪ দিন মানে চাঁদের একদিন। এমতাবস্থায়, এবার শেষ হচ্ছে সেই চন্দ্রদিন। যেকারণে এবার বিশ্রামের পালা শুরু হল বিক্রম এবং প্রজ্ঞানের। উল্লেখ্য যে, প্রথমে ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থার তরফে জানানো হয়েছিল বিক্রম ও প্রজ্ঞানের বিশ্রামের প্রক্রিয়া দু’এক দিনের মধ্যেই শুরু করা হবে। যদিও, গত শনিবার রাতেই ISRO তাদের এক্স-হ্যান্ডেলে জানিয়ে দেয় যে সেই কাজ সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে।

আরও পড়ুন: বসে নেই ISRO! চন্দ্রযান-৩-এর পর এবার মহাকাশে যাবে মহিলা রোবট, কোন মাসে সম্পন্ন হবে ট্রায়াল?

পাশাপাশি, APXS এবং LIBS পেলোডগুলির কাজকেও বন্ধ করা হয়েছে। জানিয়ে রাখি যে, চাঁদের বায়ুমণ্ডলের মৌলিক গঠনের তথ্য সংগ্রহ করার কাজ করেছে রোভাবের ২ টি পেলোড। সেগুলির মধ্যে আলফা পার্টিকল এক্স-রে স্পেকট্রোমিটার বা APXS পেলোডের কাজ ছিল চন্দ্রপৃষ্ঠে কী কী রাসায়নিক ও খনিজ উপাদান রয়েছে সেইসব বিষয়ে তথ্য অনুসন্ধান করা।

আরও পড়ুন: চন্দ্রযান ৩-এর সাফল্যের পর এল বড় তথ্য! ভারতে এইভাবে তৈরি হয়েছে ৪৫,০০০ কর্মসংস্থান, কি জানাল ISRO?

কি জানিয়েছে ISRO: এক্স-হ্যান্ডেলে ISRO জানিয়েছে যে, “রোভার তার অ্যাসাইনমেন্ট সম্পন্ন করেছে। এবার সেটিকে নিরাপদভাবে পার্ক করা হয়েছে এবং সেটি স্লিপ মোডে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত। APXS এবং LIBS পেলোডগুলিকেও বন্ধ করা হয়েছে। এই পেলোডগুলি থেকে ডেটা ল্যান্ডারের মাধ্যমে পৃথিবীতে চলে আসবে। বর্তমানে ব্যাটারির ফুল চার্জ রয়েছে। আগামী সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে সোলার প্যানেলগুলিও কাজ শুরু করে দেবে। অনুমান অনুযায়ী, ২২ সেপ্টেম্বর ফের জেগে উঠবে রোভার। আশা করা হচ্ছে সে দিন ঘুম ভেঙে ফের নিজের অন্য অ্যাসাইনমেন্ট শুরু করবে রোভার। অন্যথায় চিরকালের জন্য হয়তো ভারতের লুনার অ্যাম্বাসেডার হিসেবে চাঁদের দেশেই থেকে যাবে সে”।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর