টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গভারত

বাংলার রাজ্যপাল থেকে দেশের উপরাষ্ট্রপতি, জেনে নিন কী কী সুবিধা আর কত টাকা বেতন পাবেন ধনখড়

বাংলাহান্ট ডেস্ক : রাজস্থানের এক ছোট্ট গ্রামে জন্ম নেওয়া ছেলেটি আজ ভারতের উপরাষ্ট্রপতি। নিয়ম অনুযায়ী তিনি এখন রাজ্যসভার চেয়ারম্যান। উপরাষ্ট্রপতি হওয়ার আগেও সামলেছেন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপালের দায়িত্ব। আগামী দিনের আরও গুরু দায়িত্ব পেয়ে নিঃসন্দেহে রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে এক বিশাল সফলতার মুখ দেখলেন পশ্চিমবঙ্গের একদা রাজ্যপাল ও বর্তমান ভারতের উপরাষ্ট্রপতি জগদীপ ধনখড়।

উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ভোটাধিকার থাকে শুধুমাত্র সাংসদদের। ফলপ্রকাশের পর দেখা যায় বিজেপির রাজ্যসভা ও লোকসভার সাংসদদের মোট সংখ্যার থেকেও বেশি ভোট পেয়ে জয়লাভ করেছেন জগদীপ ধনখড়। এবারের উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচনে কংগ্রেসের প্রার্থী ছিলেন মার্গারেট আলভা। তাকে পরাজিত করে বিপুল ভোট পেয়ে জয়লাভ করেছেন ধনখড়। রাজ্যপাল থেকে উপরাষ্ট্রপতি পদে উন্নতি লাভ করার পর বেশ খানিকটা বেতন বাড়বে তার। এছাড়াও তার প্রাপ্য কিছু সুযোগ-সুবিধারও বড়সড় পরিবর্তন ঘটবে।

২০১৮ সালে মোদী সরকারের নেতৃত্বে প্রধানমন্ত্রী, রাষ্ট্রপতি, উপরাষ্ট্রপতি, রাজ্যপালদের বেতন পরিকাঠামো পরিবর্তন করা হয়। সেই পরিবর্তনের পর এক ধাক্কায় অনেকটা বেড়ে গিয়েছিল সাংবিধানিক প্রধানদের বেতনের পরিমাণ।

এই পরিকাঠামো পরিবর্তনের পর ভারতের উপরাষ্ট্রপতির বেতন মাসিক এক লক্ষ পঁচিশ হাজার টাকা থেকে বেড়ে হয় চার লক্ষ টাকা। পাশাপাশি রাষ্ট্রপতির বেতন এক লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা থেকে বৃদ্ধি পেয়ে হয় পাঁচ লক্ষ টাকা।

উপরাষ্ট্রপতির জন্য বরাদ্দ বাসস্থান “উপরাষ্ট্রপতি ভবন” নামেও পরিচিত। ভারতের উপরাষ্ট্রপতির সরকারি বাসভবন ভারতের নয়াদিল্লিতে মৌলানা আজাদ রোডে অবস্থিত। 1962 সালের মে থেকে, নয়াদিল্লির মৌলানা আজাদ রোডের 6 নং বাংলোটি ভারতের উপ-রাষ্ট্রপতির সরকারি বাসভবন হিসেবে কাজ করে আসছে। এর আয়তন 6.48 একর (26,223.41 বর্গ মিটার)। এটি দক্ষিণে মৌলানা আজাদ রোড, পূর্বে মান সিং রোড এবং পশ্চিমে রাজপথ সংলগ্ন সবুজ এলাকা দ্বারা আবদ্ধ এবং এর সাথে একটি সাধারণ সীমানা প্রাচীর রয়েছে বিজ্ঞান ভবন অ্যানেক্সি বিল্ডিংয়ের।

বেতন ছাড়াও, ভাইস প্রেসিডেন্ট বিভিন্ন ধরনের দৈনিক ভাতা পাওয়ার অধিকারী। বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা, বিনামূল্যে ট্রেন এবং বিমান ভ্রমণ, একটি ল্যান্ডলাইন সংযোগ এবং মোবাইল ফোন পরিষেবা অন্যান্য সুবিধার মধ্যে রয়েছে। ব্যক্তিগত নিরাপত্তার পাশাপাশি কর্মীও বরাদ্দ রয়েছে উপ রাষ্ট্রপতির জন্য। এছাড়াও,রাষ্ট্রপতি অনুপস্থিত থাকাকালীন ভাইস প্রেসিডেন্ট রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব গ্রহণ করলে রাষ্ট্রপতির সমস্ত সুযোগ-সুবিধাও পেয়ে থাকেন তিনি।

Related Articles