টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গবিধানসভা নির্বাচন

তৃণমূল মানেই ত্রিপল চোর, ত্রাণের চাল চোর! কাটোয়া থেকে বললেন নাড্ডা

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ আজ পশ্চিমবঙ্গ সফরে এসেছে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জগত প্রকাশ নাড্ডা। আজ সকালে অন্ডাল বিমান বন্দর থেকে কাটোয়ার উদ্দেশ্যে রওনা দেন তিনি। সেখানে মধ্যাহ্নভোজন সেরে কাটোয়ার মূস্থলিতে জনসভা করছেন তিনি। এরপর সেখান থেকে রওনা দেবেন বর্ধমানের উদ্দেশ্যে। সেখানে গিয়ে একটি রোড শো করবেন জেপি নাড্ডা।

আজ কাটোয়ার সভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে রেশন চোর, বালি চোর, ত্রিপল চোর, চাল চোর বলে আক্রমণ করে জেপি নাড্ডা। তিনি জনসভা থেকে বলেন, তৃণমূলের জন্য বাংলার কালচার এখন কাটমানির কালচার হয়ে গিয়েছে। তৃণমূলের কারণে বাংলা রেশন চোর, বালি চোর, ত্রিপল চোর, চাল চোরে ভরে গিয়েছে। তিনি তৃণমূলকে আক্রমণ করে বলেন, করোনা মহামারীর সময় রাজ্যের গরিব মানুষদের দেওয়ার জন্য খাদ্য শস্য পাঠিয়েছিল কেন্দ্র সরকার। তৃণমূলের চোরেরা সেগুলো চুরি করে নিয়েছে।

কাটোয়ার সভা থেকে রাজ্যের কৃষকদের বঞ্চিত করার অভিযোগ তুলেছেন তিনি। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা কাটোয়ার সভা থেকে বলেন, গোটা দেশে ফসলের মূল্যের নীরিখে পশ্চিমবঙ্গে স্থান ২৪ নম্বরে। আর রাজ্যের কৃষকদের অবস্থা এত শোচনীয় হওয়ার পরেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যে PM KISAN প্রকল্প চালু হতে দেন নি। রাজ্যের কৃষকদের বঞ্চিত করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা কাটোয়ার সভা থেকে বলেন, কেন্দ্রের মোদী সরকারের আমলে দেশে কৃষি বাজেট ছয় গুণ বেড়েছে। মোদী সরকার স্বামীনাথন কমিটির সুপারিশ লাগু করেছে। আর নির্বাচন সামনে আসতেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মনে পড়েছে কৃষকদের কথা। এতদিন পর উনি রাজ্যে পিএম কিষাণ সন্মান নিধি প্রকল্প চালু করার জন্য কেন্দ্রকে চিঠি লিখেছেন তিনি।

জেপি নাড্ডা বলেন, এখন কেন? এতদিন কি করছিলেন? রাজ্যের ২৩ লক্ষ কৃষক যখন এই প্রকল্পের জন্য অনলাইনে আবেদন করেছিল, তখন কি করছিলেন? এখন আর দরকার নেই। রাজ্যে বিজেপি সরকার এলে, এই প্রকল্প এমনিই লাগু হয়ে যাবে।

Back to top button