‘হ্যাঁ জানতাম’, কালো টাকা সাদা করার ৩ সংস্থায় যোগের কথা স্বীকার জ্যোতিপ্রিয় কন্যার: ED

   

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ রেশন বন্টন দুর্নীতি (Ration Scam) নিয়ে শোরগোল। রেশন কেলেঙ্কারির অভিযোগে সম্প্রতি ইডির (Enforcement Directorates) হাতে গ্রেফতার হয়েছেন রাজ্যের প্রাক্তন খাদ্যমন্ত্রী তথা বর্তমান বনমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক ওরফে বালু। জ্যোতিপ্রিয় গ্রেফতারির পর থেকেই একাধিকবার সামনে উঠে এসেছে মন্ত্রী কন্যা প্ৰিয়দর্শনীর প্রসঙ্গ। ইডি সূত্রে খবর, যে সব সংস্থার মাধ্যমে দুর্নীতির কালো টাকা সাদা হতো, সেসব সংস্থায় যোগ ছিল প্ৰিয়দর্শনীর (Priyadarshini Mallick)।

ইডি সূত্রে খবর, এই বিষয়ে জ্যোতিপ্রিয়র মেয়েকে জিজ্ঞাসাবাদ করেই এই তথ্য তাদের হাতে এসেছে। ইডির জিজ্ঞাসাবাদে তিনি স্বীকার করে নিয়েছেন যে তিনি যখন ডক্টরেট করছিলেন, সেই সময় ওই সংস্থাগুলির তৈরি নথি তিনি দেখেছিলেন। ওদিকে এখানে বাবা জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের সঙ্গে তার কথার কোনও মিল নেই। কারণ ইডি জেরায় মন্ত্রী জানিয়েছিলেন ওইসব সংস্থার বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না।

রেশন দুর্নীতিতে গত অক্টোবর মাস থেকে কোমর বেঁধে তদন্তে নেমেছে ইডি। ব্যবসায়ী বাকিবুর রহমান ও জ্যোতিপ্রিয় গ্রেফতারির পর তাদের সূত্র একাধিক জায়গায় তল্লাশি চালায় ইডি। মন্ত্রীর পরিবারের লোকজন, আপ্তসহায়ক, একাধিক জেলায় মিলের মালিকদের জিজ্ঞাসাবাদ করে ইডি।

ইডি সূত্রে খবর, বাকিবুর ঘনিষ্ঠ এক জেলার মিল মালিক তাদের কাছে বহু তথ্য ফাঁস করেছেন। তার মাধ্যমেই গোয়েন্দারা জানতে পারে দুর্নীতির কালো টাকা সাদা করতে মোট তিনটি সংস্থা তৈরি করা হয়েছিল। যেগুলোর ডিরেক্টর (Director) পদে রাখা হয়েছিল মন্ত্রীর স্ত্রী-কন্যা, এমনকি বাড়ির পরিচারকেও।

আরও পড়ুন: ED-কে দেওয়া ওই ৬০০০ পাতার নথি ‘কে, কোথায় বসে লিখেছে আমি জানি’, কী ফাঁস করলেন শুভেন্দু?

ed 3

এদিকে মন্ত্রীর প্রাক্তন PA অভিজিত্‍ দাস ইডির জেরায় জানিয়েছেন মন্ত্রীর কথা মত তার পরামর্শেই এই সমস্ত কাজ করেছিলেন তিনি। সাংবাদিকদের সামনেও সবকিছুর দায় তিনি জ্যোতিপ্ৰিয়র উপরেই চাপিয়েছিলেন। তবে আদালতে পাল্টা জ্যোতিপ্ৰিয় দাবি করেন, এই সংস্থাগুলির সঙ্গে তার কোনও যোগ নেই।

জ্যোতিপ্রিয় নাকি উল্টে আপ্ত সহায়কের উপর দোষ চাপিয়ে বলেন, ওই সব কিছু অভিজিত্‍ জানত। তার মেয়ে ও স্ত্রীকেও জোর করে সেসবের ডিরেক্টর করেছিলেন এই অভিজিৎই। ইডির কাছে এমনটাই দাবি করেছেন জ্যোতিপ্ৰিয়। সূত্রের খবর।

তবে মন্ত্রীর দাবির একেবারে পাল্টা কথা শোনা গেল জ্যোতিপ্ৰিয় কন্যার মুখে। ইডি জেরায় তিনি বলেছেন ওই তিন সংস্থার নথি তিনি নিজেই দেখেছেন। এবার প্ৰিয়দর্শীনির এই স্বীকারোক্তির পর জ্যোতিপ্ৰিয়র অস্বস্তি আরও বাড়ল বলেই মনে করা হচ্ছে।

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর