দিদির জয়ে পায়ে চোট ও বহিরাগত ইস্যু কাজ করে থাকতে পারেঃ কৈলাশ বিজয়বর্গীয়

   

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ ভোট গণনার শুরুটা হয়েছিল কাঁটার টক্কর দিয়ে। তবে সমস্ত ছক ভেঙে পোস্টাল ব্যালটের প্রাথমিক ট্রেন্ডে তৃণমূলের এগিয়ে থাকার প্রবণতা শুরু থেকেই দেখা গিয়েছিল। বেলা গড়াতেই এগিয়ে থাকার নিরিখে ব্যবধান আরও বাড়াতে থাকে শাসকদলের। দুপুর ১২টা বাজতেই এবারের ভোটে কাঙ্খিত লক্ষ্য মাত্রা ছুঁয়ে ফেলে মমতা সরকার।

শেষ পাওয়া আপডেটে দেখা যাচ্ছে, রাজ্যে ডবল ইঞ্জিন সরকার গড়া তো দূর কি বাত। প্রশান্ত কিশোরের ভবিষ্যৎবাণী ১০০-র গণ্ডি পেরোতে পারল না বিজেপি। ২০৭ আসনে এগিয়ে তৃণমূল, সেখানে বিজেপি মাত্র ৮১টি আসনে এগিয়ে। অন্যদিকে ১টি আসনে এগিয়ে সংযুক্ত মোর্চা। এরই মধ্যে কার্যত পরাজয় স্বীকার করে নিলেন বিজেপির রাজ্য পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয় (kailash Vijayvargia)।

tmcflags 1611294516

 

তিনি জানান, ‘হাওয়া দেখে মনে হচ্ছে বাংলার মানুষ মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মমতাদিকেই (Mamata Banerjee) চায়। আমরা প্রত্যাশামত ফল পায়নি, তবে ২০১৬-র বিধানসভা নির্বাচনের তুলনায় আমরা অনেকটা এগিয়ে। সেবার আমাদের ৩টি আসনে জয় এসেছিল। এবার অনেকটাই এগিয়েছি’। তিনি জানান, এব্যাপারে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে কথা হয়েছে। কৈলাশ বলেন, ‘অনেকের হার আশ্চর্যজনক। বাবুল-লকেট-রাহুল সিনহার হারে আশ্চর্য হয়েছি।’

তখনই তাঁকে এমন ফল হওয়ার কারণ কি জানতে চাওয়া হলে, কৈলাশ জানান, ‘দিদির পায়ে চোট লাগার আবেগ এবং বহিরাগতদের ইস্যু কাজ করতে পারে। এনিয়ে দলীয় স্তরে পর্যালোচনা হবে।’

সম্পর্কিত খবর