টাইমলাইনবিনোদন

ইতিহাস অর্ণব গোস্বামীকে হিরো হিসাবে মনে রাখবে: কঙ্গনা রানাওয়াত

বাংলাহান্ট ডেস্ক: ফের একবার সাংবাদিক অর্ণব গোস্বামীর (arnab goswami) হয়ে সুর চড়ালেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত (kangana ranawat)। যে অভিযোগে মুম্বই পুলিস অর্ণবকে গ্রেফতার করেছে সেই অভিযোগ আদৌ গ্রহণযোগ‍্য কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন অভিনেত্রী। অর্ণবই যে দেশের সবথেকে জনপ্রিয় সাংবাদিক একথাও জোর গলায় বলতে শোনা গেল কঙ্গনাকে।

একটি ভিডিও বার্তায় উদ্ধব ও আদিত‍্য ঠাকরেকে কড়া নিশানা করে অভিনেত্রী বলেন, “অনেকে তো এটাও জানেন না যে অর্ণব গোস্বামীকে কি কারণে জেলে পাঠানো হয়েছে। ২০১৮ তে এক ব‍্যক্তি আত্মহত‍্যা করেন। সুইসাইড নোটে কয়েকজনের নাম লিখে তিনি জানিয়েছিলেন অর্ণব গোস্বামী তাঁর টাকা সময় মতো ফেরত দেননি তাই তিনি আত্মহত‍্যা করছেন। ওঁর টিম বলছে উনি দিয়ে দিয়েছিলেন।”


তিনি আরো বলেন, “এটা তো আদালতই বলতে পারবে কেউ টাকা না দিতে পারলে, দিতে দেরি হয়ে গেলে আত্মহত‍্যা গ্রহণযোগ‍্য কিনা। এতে ট্রায়াল করা যায় কিনা। এটা সবাই জানে কিসের জন‍্য আজ ওঁকে জেলে পাঠানো হয়েছে, ওঁর উপর অত‍্যাচার হচ্ছে। পাপ্পু সেনা ওঁকে সোনিয়ার আসল নাম, ফ‍্যাসিস্ট সরকারের নাম নেওয়ার জন‍্য এমনটা করছে।”

এরপরে কঙ্গনা জোর গলায় বলেন, “কিন্তু পাপ্পু সেনা জানে না ওরা যে এই ভুলটা করল এতে প্রমাণ হয়ে গিয়েছে অর্ণব গোস্বামী সবথেকে জনপ্রিয় সাংবাদিক। ওরা ওঁকে যত অত‍্যাচার করবে ওঁর জনপ্রিয়তা ততই বাড়বে। ইতিহাসে মনে রাখা হবে পাপ্পু সেনা সংবিধানের চতুর্থ স্তম্ভের সঙ্গে কেমন ব‍্যবহার করেছিল ও ইতিহাসে অর্ণব গোস্বামীকে একজন হিরো হিসাবে মনে রাখা হবে।”

 

এর আগেও এক ভিডিওবার্তায় মহারাষ্ট্রের উদ্ধব ঠাকরে সরকারের উদ্দেশে তীব্র তোপ দেগে অভিনেত্রী বলেন, “আমি মহারাষ্ট্র সরকারের কাছে একটা প্রশ্ন করতে চাই। আজ অর্ণব গোস্বামীর বাড়িতে এসে তাঁকে মারধোর করা হয়, তাঁকে নিগ্রহ করা হয়। কতজনের বাড়ি ভাঙবেন, কতজনের গলা টিপবেন, কত আওয়াজ বন্ধ করবেন? সোনিয়া সেনা, কত মুখ বন্ধ করবেন? এই মুখগুলো বেড়েই যাবে।”

Back to top button