fbpx
টাইমলাইনবিনোদন

জিৎ গাঙ্গুলী ও কুমার শানুর মাঝে পড়ে তাঁদের ‘লিটল রাস্কেল’ বলে সম্বোধন কবিতা কৃষ্ণমূর্তির!

বাংলাহান্ট ডেস্ক: আরও এক নতুন গানের রিয়েলিটি শো শুরু হল টেলিভিশনে। স্টার জলসায় সম্প্রচারিত এই শোয়ের নাম ‘সুপার সিঙ্গার’। দীর্ঘ দশ ঘন্টার বাছাই পর্ব ‘সুপার অডিশন’-এর মাধ্যমে ২৮ জন প্রতিযোগীদের মধ্যে নির্বাচন করা হল তার অর্ধেককে। কিন্তু প্রায়ই তো নানা রিয়েলিটি শো শুরু হচ্ছে টেলিভিশনে। তাহলে এই শোয়ের মধ্যে আলাদা কী আছে?

শোয়ের বিচারক জিৎ গাঙ্গুলীর কথায়, “অন্যান্য শোতে গান হয়। এই শোয়ে গানবাজনা হবে। এখানে মিউজিক অ্যারেঞ্জমেন্ট শেখানো হয়, লিরিকস লেখা শেখানো হয়। গ্রুমাররা মিউজিক অ্যারেঞ্জমেন্টস শেখাচ্ছে। আমরা টেকনিক্যাল ব্যাপারটা শেখাচ্ছি। সব মিলিয়ে একটা কমপ্লিট প্যাকেজ। শোটা এখানেই আলাদা অন্যদের থেকে।” এর আগেও রিয়েলিটি শোয়ের পরিচালকের ভূমিকায় দেখা গিয়েছে শুভঙ্কর চট্টোপাধ্যায়কে। ‘সুপার সিঙ্গার’ শোয়ের প্রযোজক ও পরিচালকও তিনিই। তাঁর মতে, “আমরা চাই এই শোয়ের প্রতিযোগীরা এমন একটা মঞ্চ পাক যেখান থেকে ভবিষ্যতে তারা সারা পৃথিবীতে কাজ করতে পারবে।”

অপরদিকে আরেক বিচারক কুমার শানুর মতে, এটাকে শো না বলে ক্লাস বলা ভাল। কারন তাঁরা নিজেরা বড় বড় শিল্পীদের কাছ থেকে যা শিখেছেন তা প্রতিযোগীদের কাছে পৌঁছে দিতে চান। যাতে তারাও সেগুলো কাজে লাগাতে পারে। কবিতা কৃষ্ণমূর্তির কথায়, “আমরা শিক্ষকের পাশাপাশি বন্ধুও যাদের সঙ্গে শিক্ষার্থীরা ভালবাসা, মিউজিক শেয়ার করতে পারে।”

কিন্তু শুধুমাত্র যে এখানে গান নিয়ে গম্ভীর আলোচনা হয় তা নয়। জিৎ গাঙ্গুলী ও কুমার শানু মিলে কবিতা কৃষ্ণমূর্তিকে রাগানোর চেষ্টাও চলে। কবিতার কথায়, “তিনি নাকি এই দুজন ‘লিটল রাস্কেল’দের মাঝে পড়ে বোকা বনে যাচ্ছেন।” শুধুই বিচারক আর প্রতিযোগী, সঞ্চালক যিশু সেনগুপ্তর প্রশংসাতেও পঞ্চমুখ দর্শকরা। আর যিশু তো নিজেই জানালেন, প্রথম দিন থেকেই সবাই পরিবারের সদস্যের মতো হয়ে গিয়েছেন। তাই কেউ শো থেকে বেরিয়ে গেলে খারাপ লাগে। আবার কেউ খুব ভাল গাইলে চোখে জল আসে। ‘শুভঙ্কর চট্টোপাধ্যায় প্রোডাকশনস’-এর ‘সুপার সিঙ্গার’ সম্প্রচারিত হচ্ছে প্রতি শনি ও রবিবার, স্টার জলসায় রাত সাড়ে আটটায়।

Back to top button
Close
Close