তৃণমূল কর্মীকে ঠাটিয়ে চড়, ৪-৫টি বাইক ভাঙল পুলিশ! ভোটের দিন অশান্ত বহরমপুর

   

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ সোমবার রাজ্যে চতুর্থ দফার ভোটগ্রহণ চলছে। আজ বাংলার ৮টি কেন্দ্রে নির্বাচন (Lok Sabha Election)। বহরমপুর, কৃষ্ণনগর, বোলপুর, বীরভূম, আসানসোল, রানাঘাট, বর্ধমান পূর্ব এবং বর্ধমান দুর্গাপুর আসনে আজ ভোট হচ্ছে। এর মধ্যে বহরমপুর কেন্দ্রের বেশ কয়েকটি জায়গা উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। বড়ঞার হরিবাটি শিশুশিক্ষা কেন্দ্রের বুথের বাইরে যেমন কংগ্রেসের সঙ্গে তৃণমূলের (Trinamool Congress) ধাক্কাধাক্কি অবধি হয়েছে।

অভিযোগ, কংগ্রেসের (Congress) এজেন্টকে বসতে বাধা দেওয়া হচ্ছিল। এরপরেই তৃণমূলের এক কর্মীর গালে ঠাটিয়ে থাপ্পড় মারেন একজন পুলিশ। এখানেই শেষ নয়, লাঠিচার্জ করে দুই পক্ষের একাধিক বাইক ভেঙে দেওয়ার অভিযোগও উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে বড়ঞার হরিবাটি শিশুশিক্ষ কেন্দ্রের ৫১ এবং ৫২ নম্বর বুথে।

কংগ্রেসের তরফ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, তাঁদের এজেন্টকে একাধিকবার বের করে দেওয়া হচ্ছে। বড়ঞার পাশাপাশি বহরমপুর (Berhampore) লোকসভা আসনের অন্তর্গত বেলডাঙা এলাকাও উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল। সেখানেও কংগ্রেসের এজেন্টকে বুথে বসতে বাধা দেওয়া হয় বলে খবর। অন্যদিকে আবার মির্জাপুর খাগড়ুপাড়া ৮৫ নম্বর বুথের বাইরে অবৈধ জমায়েত দেখে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা তাড়া করেন।

আরও পড়ুনঃ রাতেই ‘পুলিশি তাণ্ডব’! সন্দেশখালিতে তৃণমূল নেতা পেটানোর ঘটনায় মহিলা সহ গ্রেফতার ৪ BJP কর্মী, তোপ মালব্যর

এই বুথেও কংগ্রেসের পোলিং এজেন্টকে তৃণমূল বসতে দিচ্ছিল না বলে অভিযোগ। এরপর বসতে দিলেও বুথের বাইরে জমায়েত হতে শুরু করে। তা নজর এড়ায়নি কেন্দ্রীয় বাহিনীর। লাঠি উঁচিয়ে সেই অবৈধ জমায়েত সরান তাঁরা।

এছাড়া বহরমপুরের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী ইউসুফ পাঠানের বেলডাঙায় বুথ পরিদর্শনের সময় আবার তৃণমূল কর্মীর বিরুদ্ধে ভোটারদের প্রভাবিত করার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাস্থন বেলডাঙার মির্জাপুর-খাগড়ুপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয় বুথ। ক্যামেরায় দেখা যায়, রাজ্য সরকারের নানান প্রকল্পের কথা মাথায় রেখে ভোটারদের ভোট দিতে বলছেন এক তৃণমূল কর্মী।

Lok Sabha Election Police slapped Trinamool Congress worker in Berhampore

যদিও ওই তৃণমূল কর্মী আবার রাজ্য পুলিশ এবং কেন্দ্রীয় বাহিনী অত্যাচার করছে বলে সাফাই দেওয়ার চেষ্টা করে। উল্লেখ্য, এই বুথেই কংগ্রেসের এজেন্টকে বসতে না দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল। পরে বসতে দিলেও বুথের বাইরে লোক জড়ো হতে শুরু করে। কিন্তু কেন্দ্রীয় বাহিনীর তাড়া খেয়ে নিমেষের মধ্যে সেই জমায়েত ভঙ্গ হয়ে যায়।

Sneha Paul
Sneha Paul

স্নেহা পাল, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তরের পর সাংবাদিকতা শুরু। বিগত প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর